মৃত্যুকে আলিঙ্গন করে বেঁচে আছে মোহাম্মদ মোল্লা

মোহাম্মদ মোল্লা। ছবি: ফোকাস মোহনা.কম

চাঁদপুর: মোহাম্মদ মোল্লা। বয়স আনুমানিক ২৫ বছর। যে বয়সে উদ্যোমী হয়ে কাজ করার কথা, কিন্তু তার ফুসফুস আক্রান্ত হওয়ার কারণে কাজে করতে অনেকটা অক্ষম হয়ে পড়েছে। চিকিৎসা করাতে না পেরে দিন ও রাতে মৃত্যুকে আলিঙ্গন করে সে। রাতে অনেক সময় চিৎকার করে উঠে এবং প্রতিবেশীদের কাছে ক্ষমা চেয়ে মৃত্যুর জন্য প্রস্তুতি নেয়।

মোহাম্মদ মোল্লা চাঁদপুর সদর উপজেলার হানারচর ইউনিয়নের দক্ষিণ গোবিন্দিয়া গ্রামে সড়কের পাশে পানি উন্নয়ন বোর্ডের জায়গায় পরিবারের সদস্যদের নিয়ে বসবাস করে। পিতা সুলতান মোল্লাও পঙ্গু এবং চলাফেরায় অক্ষম। মা ফিরোজা বেগম ও স্ত্রীকে নিয়ে একটি ভাঙা ঘরে থাকেন। বৃষ্টি আসলেই অনেক সময় পাশের অন্য মানুষের ঘরে গিয়ে থাকতে হয়।

রবিবার (০২ অক্টোবর) দুপুরে কথা হয় মোহাম্মদ মোল্লা ও তার মায়ের সাথে। মোহাম্মদ মোল্লা বলেন, আমি নদীতে মাছ ধরার কাজ করতাম। কিন্তু শারিরীক অসুস্থ্যতার কারণে কাজে যেতে পারিনা। মানুষের কাছে হাত পেতে কয়েকবার চিকিৎসা নিয়েছি। কিন্তু এখন আর সামর্থ নেই চিকিৎসা করার।

মোহাম্মদ মোল্লার মা ফিরোজা বেগম বলেন, গত দুই বছর আমার ছেলেটা অসুস্থ্য। ভাল কোন চিকিৎসা করার জন্য টাকা নাই। মানুষের কাছে হাত পেতে কয়েকবার চিকিৎসা করিয়েছি। মেঘনার ভাঙনের পরে রাস্তার পাশে আশ্রয় নিয়েছি। ভাঙা ঘরে স্বামী, ছেলে ও ছেলের বউকে নিয়ে থাকতে হয়। সরকারিভাবে কোন সহযোগিতা পাই না। সংসারে একমাত্র উপার্জন করে আমার ছেলে। ছেলেও অসুস্থ্য। আমি সকলের কাছে ছেলের চিকিৎসার জন্য সাহায্য চাই এবং সরকারের কাছে একটু মাথা গোজার ঠাঁই চাই।
ফম/এমএমএ/

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | ফোকাস মোহনা.কম