কচুয়ায় আগুনে ২৫ঘর পুড়ে ক্ষয়ক্ষতি হলেও অক্ষত পবিত্র কোরআন

ছবি: কচুয়ায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ২৫টি ঘর পুড়ে ক্ষয়ক্ষতি হলেও অক্ষত পবিত্র কোরআনের অক্ষর।

কচুয়া (চাঁদপুর): নিশ্চয়ই আমিই কোরআন নাজিল করেছি এবং অবশ্যই আমিই তা সংরক্ষণ করব। (আল কোরআন)। আল্লাহ পাক মাঝে মাঝে কিছু অলৌকিক ঘটনা ঘটিয়ে কোরআনের মুজেযা দেখান। এটা তেমনি একটি ঘটনা। কচুয়া উপজেলার কাদলা ইউনিয়নের দোঘর মুন্সী বাড়িতে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে কচুয়া ফায়ার সার্ভিসের ২টি ইউনিট ২ ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

এতে বসতঘরসহ ছোট-বড় প্রায় ২৫টি ঘর সম্পূর্ণ পুড়ে ছাই হয়ে যায়,কিন্তু অক্ষত ছিল পবিত্র কোরআনের আয়াত। এ অলৌকিক ঘটনাটি সামাজিক ফেসবুকে বেশ আলোচিত হয়েছে। অনেকে ছবিটিকে ফেসবুকে শেয়ার ও ছবি তুলে ডিভাইসে সেভ করে রেখেছেন।

জানা যায়,দোঘর মুন্সী বাড়ির মৃত. ফজলুল হক মুন্সীর ছেলে নবীর হোসেনের ঘর থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। কিছুক্ষণের মধ্যে আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে আশপাশের ঘরগুলোতে।

এতে ওই বাড়ীর রফিকুল ইসলাম মাষ্টার, নবীর হোসেন, আজিজুল হক, হোসেন মুন্সী, করিম, সাখাওয়াত, আব্দুর রশিদ, বিল্লাল হোসেন, ইয়াছিন, জাসেদ মুন্সীর বসত ঘর, গোয়াল ঘর, রান্না ঘর সহ ছোট-বড় কমপক্ষে ২৫টি ঘর পুড়ে যায়। এতে ১১টি পরিবারের প্রায় দেড় কোটি টাকার ক্ষতিসাধন হয়েছে বলে জানিয়েছে ক্ষতিগ্রস্তরা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আগুনের লেলিহান শিখা চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে স্বল্প সময়ের মধ্যে পুড়ে যায় প্রায় ২৫টি ঘর। কিন্তু আল্লাহর পবিত্র কোরআন শরীফের ঘরে আগুন লাগলেও অক্ষত থাকে কোরআনের আয়াত। কোরআনের আয়াতগুলোর চারদিকে কিছুটা ক্ষতি হলেও কোরআনের আয়াতের অক্ষরগুলো অক্ষত থেকে যায়।

মহান আল্লাহ পাক এ ঘটনার মাধ্যমে তাঁর বান্দাদের দেখিয়ে দিয়েছেন যে, আগুনে সব পুড়ে শেষ হয়ে গেলেও আল্লাহর কালামকে আগুন স্পর্শ করবে না। আল্লাহ তা’আলা বলেছেন, নিশ্চয়ই আমিই কোরআন নাজিল করেছি এবং অবশ্যই আমিই তা সংরক্ষণ করব। মাঝে মাঝে তিনি কিছু কিছু অলৌকিক ঘটনা ঘটিয়ে কোরআনের মুজেযা তাঁর বান্দাদের উপস্থাপন করেন।

ফম/এমএমএ/ইসমাইল/

ইসমাইল হোসেন বিপ্লব | ফোকাস মোহনা.কম