শীঘ্রই শুরু হতে যাচ্ছে চাঁদপুরের প্রানের চতুরঙ্গ ইলিশ উৎসব

চাঁদপুর:  আসন্ন ১৬ থেকে ২২ সেপ্টেম্বর সপ্তাহব্যাপী শুরু হতে যাচ্ছে জেগে ওঠো মাটির টানে ১৪ তম ইলিশ উৎসব। উৎসবের উদ্বোধন করবেন চাঁদপুরের মাটি ও মানুষের নেতা শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি।

বৃহস্পতিবার (০৪ আগস্ট) চতুরঙ্গ ইলিশ উৎসবের মহাসচিব হারুন আল রশিদ এর ভ্যারিফাইড ফেইসবুক (সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম) থেকে এ তথ্য জানা যায়।

তথ্যে আরো জানা যায় সপ্তাহব্যাপী উৎসবের মৌলিক কর্মসূচি, অংশগ্রহণকারী স্থানীয় ও অতিথি সংগঠন এবং অতিথি শিল্পীদের তালিকা। এছাড়া উপদেষ্টা মন্ডলীসহ নির্বাহী পরিষদের কমিটির তালিকাও প্রকাশ করা হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটি। সপ্তাহব্যাপী মৌলিক কর্মসুচিতে রয়েছেঃ জাটকা ইলিশ রক্ষায় প্রীতি বিতর্ক, মা ইলিশ রক্ষায় গোলটেবিল বৈঠক, ইলিশ মাছ বিক্রি ও প্রদর্শন, সরাসরি ইলিশ রেসিপি তৈরি ও প্রদর্শন, ইলিশ বিষয়ক সরাসরি ছবি আঁকা প্রদশর্ন, ইলিশ নিয়ে কবিতা পাঠের আসর, প্রান্তিক জেলেদের মুক্ত ভাবনা বিষয়ক বৈঠক।

উৎসবে অতিথি সংগঠনগুলো হচ্ছেঃ ঢাকার বয়াতী গ্রুপ, ঢাকার সুরের পাখি, নারায়ণগঞ্জ হাওয়াইয়ান গিটার পরিষদ, লক্ষ্মীপুর জেলার লতিকা নৃত্যালয় ও ঢাকার কাদরী ডান্স ট্রুপ। চাঁদপুরের সংগঠনগুলোর মধ্যে রয়েছে, সংগীত নিকেতন, বঙ্গবন্ধু আবৃত্তি পরিষদ, উদয়ন সংগীত বিদ্যালয়, সুরধ্বনি একাডেমি, নৃত্যাঙ্গন, রংধনু, নৃত্যধারা, নতুন কুঁড়ি ও স্বপ্ন কুঁড়ি।

৭ দিনব্যাপী উৎসবে অতিথি শিল্পীদের মধ্যো রয়েছেনঃ ঢাকা জেলার নুসরাত সুমী, অনুপম বিশ্বাস, মাদারীপুর জেলার সাধনা সরকার, ঢাকা জেলার শাহনাজ আকতার, কুমিল্লা জেলার রাবেয়া আকতার ও আকর্ষণীয় কোলকাতা শহরের পুনম মিত্র৷ যাদের নিয়ে চতুরঙ্গ সংগঠন উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ ওয়াদুদ, লেখক ও সাংবাদিক কাজী শাহাদাত, বীর মুক্তিযোদ্ধা অজিত সাহা, শিক্ষাবীদ মোঃ আলমগীর হোসেন বাহার, ইয়র্ক ফ্যাশন এর চেয়ারম্যান সেলিম খান, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ মহসীন পাঠান, স্বর্নপদক প্রাপ্ত সমবায়ী মোঃ জসীম উদ্দিন শেখ, লেখক ও ছড়াকার ডাঃ পীযুষ কান্তি বড়ুয়া, সাংস্কৃতিক সংগঠক শহীদ পাটোয়ারী, সংস্কৃতিসেবী রোটাঃ মনিরুল ইসলাম, সংস্কৃতিসেবী রোটাঃ মোঃ শবে-বরাত, সাংস্কৃতিক সংগঠক তপন সরকার, সংস্কৃতিসেবী রোটাঃ তোফায়েল আহম্মদ শেখ, সংস্কৃতিসেবী ডাঃ মাসুদ হাসান, সংস্কৃতিসেবী জয়নাল আবেদীন জনু, সংস্কৃতিসেবী ও পরেশ মালাকার।

ইলিশ উৎসবের মৌলিক অংশীদাররা হলেনঃ মৎস্যজীবী প্রতিনিধি মালেক দেওয়ান, মানিক দেওয়ান, শাহ আলম মল্লিক ও তছলিম বেপারী। আজীবন সদস্যরা হলেনঃ মাহমুদা খানম, মির্জা জাকির, জি এম শাহীন, রাজন চন্দ্র দে, তবিবুর রহমান রিঙ্কু, মোবারক হোসেন শিকদার, উজ্জ্বল হোসাইন, শারমিন আকতার জুঁই, এম আর ইসলাম বাবু, মোঃ ইমাম হোসেন, সুমনা বেগম সুমি, নাজনীন আকতার, জি এম লিটন ও ফৌজিয়া হোসেন পুতুল। ইলিশ উৎসবে নির্বাহী পরিষদের মধ্যে রয়েছেনঃ চেয়ারম্যান অ্যাড. বিনয় ভূষন মজুমদার, ভাইস চেয়ারম্যান কৃষ্ণা সাহা, ভাইস চেয়ারম্যান সাধনা সরকার, মহাসচিব, হারুন আল রশীদ, যুগ্ম মহাসচিব মৃনাল সরকার, যুগ্ম মহাসচিব তামীম আহমেদ সুমন, পরিচালক( সংগীত) অনিতা কর্মকার, পরিচালক( অর্থ) জসীম মেহেদী, পরিচালক ( চিত্রকলা) মনির হোসেন মান্না, পরিচালক ( প্রকাশনা) মানিক দাস, পরিচালক( অনুষ্ঠান) শুভ্র রক্ষিত, পরিচালক ( নাট্যকলা) মোঃ রাজীব চৌধুরী, পরিচালক ( সেমিনার) মেহেদী হাসান জীবন, পরিচালক(প্রচার) এম এইচ বাতেন, পরিচালক (সম্প্রচার) শাহরিয়া পলাশ ও পরিচালক( নৃত্য) রাশেদুল রাব্বী।

সাংস্কৃতিক পরিষদের মধ্যে রয়েছেনঃ ইতু চক্রবর্তী, সাধনা সরকার, জিয়াউর রহমান জসীম, খোকন দাস, পরিমল দাস নুপুর, আফসার বাবু, আফজাল রশীদ শান্তু, অনির্বান সাহা, ফয়সাল রশীদ শাওন, এ আর আজীজ, প্লাবন ভট্রাচার্য, তন্ময়ী রক্ষিত, অনিক নন্দী, নোমান রেজা রিয়াদ, মোহাম্মদ মামুন, আরিফ খান, অর্পিতা ঘোষ রক্ষিত, মোনায়েম হোসেন অন্তু, মুন্না ঘোষ, কাজি কাবিসা, ইফনাতুন নুশাদী, সানজিদা আলম ও স্বপ্নীল সাহা।

নৃত্য পরিষদে রয়েছেনঃ রিপন সরকার, সাজাহান খান, রাজীব সাহা, বাপ্পী চৌধুরী, রোমানা আকতার, আহসান খান জুয়েল, রফিকুল রাজু, তাসনীম রুবা, ইসরাত প্রীতি, ইসরাত মুন্নী, পাবেল, সোহান, শামসুদ্দিন, সাব্বির, কথা, তনুশ্রী, নাদিয়া ও শান্ত।

বিঃদ্রঃ ১৬ হতে ২২ অক্টোবর সপ্তাহব্যাপী চতুরঙ্গ ইলিশ উৎসবের এ অনুষ্ঠান সূচি পরিবর্তন ও সংযোজন হতে পারে বলেও জানা যায়।

ফম/এসএসপলাশ/এমএমএ/

শাহরিয়া পলাশ | ফোকাস মোহনা.কম