প্রধানমন্ত্রীর সাহসী নেতৃত্বে শিক্ষায় ব্যাপক উন্নয়ন সম্ভব হয়েছে

--- মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপি

চাঁদপুর: চাঁদপুর-৫ আসনের সংসদ সদস্য মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম বীরউত্তম বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাহসী নেতৃত্বে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অবকাঠামগত ব্যাপক উন্নয়ন সম্ভব হয়েছে। ১৯৯৬ সালে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করে। তখন আপনাদের ভোটে আমি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হই। তখন থেকে ২০২২ সাল পর্যন্ত দীর্ঘ ২৭ বছর আমার নির্বাচনী এলাকা হাজীগঞ্জ ও শাহরাস্তিতে কাজ করে যাচ্ছি। আমরা দুই উপজেলায় প্রাথমিক, মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক ও মাদ্রাসার ৮শ’ নতুন একাডেমিক ভবন নির্মাণ করতে সক্ষম হয়েছি। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এসব উন্নয়ন এই এলাকার অন্য সংসদ সদস্যরা করতে পারেননি।

শনিবার (১৮ জুন) দুপুরে চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ উপজেলার কাঁকৈরতলা ইসলামিয়া আলিম মাদ্রাসার নবনির্মিত একাডেমিক ভবনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমি যখন সংসদ সদস্য নির্বাচিত হই। তখন এই নির্বাচনী এলাকার সড়কগুলো পাকা ছিল না। আমরা পর্যায়ক্রমে ৭শ’ কিলোমিটার সড়ক পাকা করেছি। ডাকাতিয়া নদীর উপর ৮টি ব্রিজ নির্মাণ হয়েছে। আরো ৩টির কাজ চলমান। এছাড়াও ছোট বড় মিলিয়ে ৮শ’ ব্রিজ ও কালভার্ট নির্মান হয়েছে। এসব উন্নয়নের কারণে এখন গ্রামের চিত্র পাল্টেছে এবং মানুষের জীবন যাত্রার মান উন্নত হয়েছে। প্রত্যেক ঘরে ঘুরে বিদ্যুৎ দিয়েছি। আমাদের উন্নয়ন কাজ অনেক হয়েছে। এখন প্রয়োজন মানুষের কর্মসংস্থানের। সেই চেষ্টা আমাদের করতে হবে। কৃষকদের উন্নয়নে কাজ করতে হবে।

রফিকুল ইসলাম বলেন, গত ২৭ বছর আগে এসব গ্রাম এলাকার ছবি যদি কারো কাছে থাকে তাহলে তুলনা করে দেখবেন কতটা উন্নয়ন হয়েছে। নির্বাচনী এলাকার দু’টি উপজেলা, দু’টি পৌরসভা ও প্রত্যেকটি ইউনিয়নে আমার সাধ্যমত জনগণের দাবীগুলো পুরনের চেষ্টা করেছি। এসব এলাকার লোকজন আমার আত্মীয়। তাদের সাথে আমার আত্মার সম্পর্ক আছে। তা না হলে তারা কেন বার বার আমাকে নির্বাচিত করবেন। সরকারের এসব উন্নয়ন কাজ বাস্তবায়ন করার জন্য আমাকে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, মহিলা আওয়ামী লীগসহ অঙ্গসহযোগী সংগঠনের সর্বস্তরের নেতৃবৃন্দ সহযোগিতা করেছেন। যে কারণে আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রত্যেকটি নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে সক্ষম হয়েছি।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও মাদ্রাসা পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি কাজী নুরুর রহমান বেলাল। বক্তব্য রাখেন হাজীগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. মেহেদী হাসান মানিক, হাজীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক হাজী জসিম উদ্দিন।

ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন বাচ্চু, মজিবুর রহমান, ইউসুফ প্রধানিয়া সুমন, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক মাসুদ ইকবাল, যুগ্ম আহবায়ক জাকির হোসেন হেলাল, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) সোহেল আলম বেপারী, সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাব্বি, অভিভাবক, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা এসময় উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়াও সংসদ সদস্য মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম বীরউত্তম এরপরে উপজেলার জগন্নাথপুর এরশাদ মিয়া উচ্চ বিদ্যালয় একতলা ও মালিগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ের ৩ তলা নতুন একাডেমিক ভবন উদ্বোধন করেন। এসব ভবন নির্মাণ কাজ বাস্তবায়ন করেছে সরকারের শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর।

ফম/এমএমএ/

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | ফোকাস মোহনা.কম