হাজীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ও কাউন্সিলরের পক্ষে ঝাড়ু হাতে মানববন্ধন

হাজীগঞ্জ (চাঁদপুর): চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ পৌরসভার সংরক্ষিত-৩ (ওয়ার্ড নং-৭, ৮ ও ৯) এর নারী কাউন্সিলর মিনু আক্তার তার ব্যক্তিগত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুক (মিনু আক্তার) ফেইসবুকে পৌরসভার মেয়র আ. স. ম মাহবুব-উল আলম লিপন ও ৭নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর কাজী মনির হোসেনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন মিথ্যাচার ও অশালিন বক্তব্য প্রত্যাহার ও কাউন্সিলর মিনু আক্তারকে গ্রেফতারের দাবীতে মানববন্ধন করেছে পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের সর্বস্তরের জনগণ। মানববন্ধনে মিনু আক্তারের বিচার চেয়ে ঝাড়ু হাতে রাস্তায় নেমে আসে মা-বোনেরা। তারা পৌর মেয়রকে কেউ বাবা, কেউ অভিভাবক বলে মিনু আক্তারের বিরুদ্ধে শ্লোগান দিতে থাকে।
মানববন্ধন শেষে মিনু আক্তারের বিরুদ্ধে ঝাড়ু হাতে বিক্ষোভ মিছিল করে এলাকার হাজার হাজার নারী পুরুষ।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন ৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোহাসীন ফারুক বাদল, ৫নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সুমন তপদার, ৬নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোহাম্মদ শাহআলম, ৯নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. আজাদ হোসেন, ৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তফা কামাল, সাবেক কাউন্সিলর নুর হোসেন।

মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন নারী কাউন্সিলরর ১, ২ ও ৩নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর রোকেয়া বেগম, ৪, ৫ ও ৬নং ওয়ার্ডের মমতাজ বেগম মুক্তা, ১০, ১১ ও ১২নং ওয়ার্ডের নাজমুন নাহার আক্তার ঝুমু, ১নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মাইনুদ্দিন মিয়াজী, ২নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আলাউদ্দিন মুন্সী, ৭নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর কাজী মনির হোসেন, ৮নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হাজী মো. কবির হোসেন, ১০নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. বিল্লাল হোসেন, ১১নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. সাদেকুজ্জামান মুন্সী ও ১২নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. শাহআলম, ফারুক মিয়া, ইলিয়াস মিয়া, কবির হোসেন মজুমদার, তাজুল ইসলাম খোকা, কাজী আনিসুর রহমান, তৈয়ব আলী, ইমান আলী, আবুল বাসার আঠিয়া, যুবলীগ নেতা রুবেল মজুমদার, খোরশেদ আলম, মাসুদ রানা, মজিবুর রহমান, আক্তার হোসেনসহ স্থানীয়রা।
এর পূর্বে মিনু আক্তারের এসব অনৈতিক কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে পৌর পরিষদের পক্ষে মঙ্গলবার বিকালে পৌরসভা কক্ষে অনুষ্ঠিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান পৌরসভার সকল কাউন্সিলর ও কর্মকর্তাবৃন্দ।

এর আগে গত ৩১ অক্টোবর বিকালে ওই সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর মিনু আক্তার তার ব্যবহৃত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক পোস্ট ও মঙ্গলবার দুপুরে লাইভ বক্তব্যের মাধ্যমে পৌর মেয়র ও ৭নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে বিভিন্ন করেন। এছাড়াও ওই পোস্ট ও লাইভে তিনি ও তার স্বামীকে হুমকি প্রদান করায় তারা নিরাপত্তাহীনায় ভুগছেন বলে উল্লেখ করেন মিনু আক্তার।

ইতিপূর্বে মিনু আক্তার শুধু পৌরসভার মেয়র ও ৭নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে অভিযোগ করলেও বুধবার সকালে সে তার ব্যক্তিবগত ফেইসবুক থেকে লাইবে এসে পৌরসভার মেয়র ও সকল কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে হুমকীর অভিযোগ তোলেন।
ফম/এমএমএ/

মহিউদ্দিন আল আজাদ | ফোকাস মোহনা.কম