হাইমচরে স্কুল ছাত্র সোহানের আত্মহত্যার ঘটনায় মানববন্ধন

চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলার নীলকমল ওসমানিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী সোহান (১৮) আত্মহত্যার প্ররোচনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করা হয়েছে।
শনিবার (২৩ নভেম্বর) বিকেলে ৩ নং দক্ষিণ আলগী ইউনিয়নের চরভাঙ্গা গ্রামে জনতা বাজার সড়কে এই বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।
একই গ্রামের বাবুল শেখের মেয়ে বিথী আক্তারের সাথে দীর্ঘদিন সোহানের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। এই ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে প্রেমিকার বীথির পরিবার সোহানকে চাঁদপুর শহরে খবর দিয়ে এনে ব্যাপক মারধর করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
প্রেমিকার বাবা মার হাতে মারধরের শিকার হয়ে অভিমান করে সোহান তার নানার বাড়িতে এসে বিষপানে আত্মহত্যা করেন। তার পরিবারের লোকজন তাকে হাইমচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে হাসপাতালে নিয়ে আসার পর কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
সোহান এর বড় ভাই জানায়, মৃত্যুর যন্ত্রনা ছটফট করার পূর্বে সোহান বলেছে যে এই মৃত্যুর জন্য বীথির বাবা বাবুল শেখ মা স্বপ্না বেগম দায়ী।
কারণ তারা প্রেমের ঘটনা জানতে পেরে চাঁদপুর খবর দিয়ে নিয়ে ব্যাপক মারধর করার পর বিষ খেয়ে মরে যাওয়ার জন্য বলেন। এজন্য মনের ক্ষোভে বিষ খেয়ে আত্মহত্যা পথ বেছে নিয়েছে।
সোহানের বাবা শরিফ বেপারী জানায়, ছেলের সোহান মৃত্যুর জন্য দায়ী বিথির বাবা-মা। ছেলের কাছ থেকে বিভিন্ন সময় তারা অনেক টাকা-পয়সা হাতিয়ে নিয়েছে। মেয়েকে অন্য জায়গায় বিয়ে দেওয়ার চিন্তা করেই সোহানকে ডেকে নিয়ে এভাবে মানসিকভাবে মারধর করে নির্যাতন করেছে। আমরা বিথি ও তার বাবা-মার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী জানাই।
উল্লেখ্য, ১৯ নভেম্বর বুধবার সকাল সাড়ে ১০ টায় সোহান বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। ঘটনার ১ দিন পূর্বে সোহানকে বিথীর মাধ্যমে খবর দিয়ে নিয়ে মারধর করার কারণে এই আত্মহত্যার ঘটনাটি ঘটে।
ফম/এমএমএ/

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | ফোকাস মোহনা.কম