হাইমচরে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কমিটি নিয়ে ধুম্রজাল

পুরনো তারিখের নতুন কমিটি গ্রহন যোগ্য না : জেলা আওয়ামী লীগ

চাঁদপুর: চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলার ৬টি ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের পুরনো তারিখে নতুন কমিটি নিয়ে দলীয় নেতা কর্মী ও আওয়ামী প্রেমি মানুষজনের মাঝে ধুম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে। তবে জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এ কমিটিকে গ্রহন যোগ্য না বলে পুর্বের ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের কমিটি বহাল থাকবে বলে জানান।
১৫ নভেম্বর গভীর রাতে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের পছন্দ মতে পুরনো তারিখ দেখিয়ে নতুন করে ৬টি ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের কমিটি মৌখিক ভাবে ঘোষনা করেন। কমিটিতে সভাপতি সাধারণ সম্পাদক পদ পাওয়া নেতাদেরকে অভিনন্দ ও শুভেচ্ছা জানানো হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।  এর পর থেকেই হাইমচর উপজেলা জুড়ে নতুন কমিটি নিয়ে আলোচনা সমালোচনার সৃষ্টি হয়।
নীলকমল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক সালাউদ্দিন সরদার জানান, সম্মেলনের তারিখ ঘোষনার পর পুরনো কমিটি বাতিল করে নতুন কমিটি করা সংগঠন বহিরভূত। গত ১৫ নভেম্বর গভীর রাতে যে কমিটি ঘোষনা করা হয়েছে তা একটি পকেট কমিটি। এ কমিটিকে জেলা আওয়ামীলীগ অবৈধ ঘোষনা করে আমাদের সাবেক কমিটিকে বহাল রেখেছেন। জেলা আওয়ামীলীগ পুরনো কমিটি বহাল রেখে দলের সম্মান রক্ষা করেছেন।
চরভৈরবী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক সোহেল হাওলাদার জানান, রাতের আধারে গঠন করা নতুন কমিটি সংগঠন বিরোধী। তারা তাদের স্বার্থে ইউনিয়নে না গিয়ে উপজেলায় বসে নিজস্ব লোকদেরকে দিয়ে কমিটি তৈরি করেন। এমন নেতাকে সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক মনোনীত করেন যারা কাউন্সিলর হওয়ারও যোগ্য না। জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি নাছির উদ্দিন ভূইয়া ও সাধারষ সম্পাদক আবু নঈম দুলাল পাটওয়ারী আমাদেরকে বলেছেন, সম্মেলনের তারিখ নির্ধারনের পর নতুন কোন কমিটি করা যাবে না। যদিও কেউ কোন কমিটি করেন তা গ্রহন যোগ্য না। ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের পুরনো কমিটি বহাল থাকবে। আপনারাই সম্মেলনের কাউন্সিলর হবেন।
উপজেলা যুবলীগ সাবেক সভাপতি, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান পাটোয়ারী জানান, আগামী ৫ডিসেম্বর উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলনের তারিখ ঘোষনার পর নতুন করে এ কমিটি করা গঠনতন্ত্র বহিরভূত। উপজেলায় কোন কর্মকান্ডে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ, কেন্দ্রীয় আওয়ামীগ ও জেলা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ এবং মাননীয় শেখ হাসিনা তা মেনে নিবে না।
জেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম দুলাল পাটোয়ারী জানান, হাইমচর উপজেলার যত গুলো ইউনিয়নের পুরনো তারিখ ব্যবহার করে আওয়ামীলীগের কমিটি গঠন করা হয়েছে, তা নিয়ম বহিরভূত। সম্মেলনের পূর্বে কোন নতুন কমিটি গঠন করা যাবে না। সুতরাং পূর্বের যে কমিটি রয়েছে সেটি বহাল থাকবে।
জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি নাছির উদ্দিন ভূইয়া জানান, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী বর্ধিত সভার তারিখ হওয়ার পরে পুরনো তারিখ ব্যবহার করে কোন কমিটি দেয়ার সুযোগ নেই। এ বিষয়ে আমি জেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদককে বলেছি পূর্বের কমিটি বহাল রেখে নতুন কমিটি না দেয়ার জন্য, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে জানিয়ে দেওয়ার জন্য।
ফম/এমএমএ/

মো. মহসিন মিয়া | ফোকাস মোহনা.কম