হবিগঞ্জ বিআরটিএ অফিস থেকে আটক ৩ দালালের দন্ড

হবিগঞ্জ: জেলা প্রশাসক মোঃ কামরুল হাসান বিআরটিএ অফিসে অভিযান চালিয়ে ৩ দালালকে আটক করেছেন। পরে ২জনকে সশ্রম কারাদন্ড ও ১ জনকে অর্থদণ্ড করা হয়েছে।
রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৮টার দিকে জেলা প্রশাসক মোঃ কামরুল হাসান বিআরটিএ অফিসে ঝটিকা অভিযান চালান। এ সময় তাঁর সাথে ছিলেন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট নাদির হোসেন শামীম। এ সময় অফিসের ভিতরে এত মানুষ এবং শৃঙ্খলা নেই কেন এই প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয় বিআরটিএ অফিসের ইন্সপেক্টর শরফুদ্দিন আকন্দ।
পরে অবস্থানরতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে যাচাই করেন এসময় হবিগঞ্জের আলোচিত দালাল শহরের গোসাইনগরে বসবাসকারী কিশোরগঞ্জ জেলার মিঠামইন উপজেলার কাঞ্চনপুর গ্রামের জহুর আলী চৌধুরীর পুত্র রেজাউল হাই চৌধুরী পানজু (৪৫)সহ , নবীগঞ্জের পূর্ব তিমিরপুর গ্রামের সুকুমার সরকারের পুত্র সুকেশ সরকার (৩৫) উপজেলার জগতপুর গ্রামের মৃত জহির আলীর পুত্র নাসির উদ্দিন (৩৫) কে আটক করা হয়। বাকীদের জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ছেড়ে দেয়া হয়।
জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট নাদির হোসেন শামীম ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে বিআরটিএ অফিসে দালালীর অভিযোগে আটক পানজুকে ১মাসের  বিনাশ্রম কারাদন্ড ও সুকেশকে বিনাশ্রম ১০ দিনের কারাদন্ড ও আটক অপর নাসির উদ্দিনকে ছাড়ানোর জন্য দৌড়-ঝাঁপ শুরু করেন বিআরটিএ অফিসের ইন্সপেক্টর শরফুদ্দিন আকন্দ।
ভ্রাম্যমান  আদালতে ইন্সপেক্টর শরফুদ্দিন আকন্দ ও  সীল-কন্ডাক্টর চন্দন মনি পালের কাছ থেকে উপস্থিত সংবাদ-কর্মীসহ সবার সামনে লিখিত ভাবে লিখিত রাখেন নাসির উদ্দিন পারিশ্রমিকের মাধ্যমে তাদের কাজে সহায়তা করে। পরে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট নাসির উদ্দিনকে ২শ টাকা জরিমানা করেন। এরই প্রেক্ষিতে বিজ্ঞ আদালত বিআরটিএ অফিসে আর কোন ধরনের দালালি না হয় সে জন্য  ইন্সপেক্টর শরফুদ্দিন আকন্দকে সতর্কতা করেন।
উল্লেখ, কিছু দিন পূর্বে ও দুদকের অভিযানে ১ দালালকে আটক করা হয়েছিল।
ফম/এমএমএ/

আজিজুল ইসলাম সজীব | ফোকাস মোহনা.কম