স্বর্ণ ব্যবাসয়ীর অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে চাঁদপুরে বাজুসের মানববন্ধন

চাঁদপুর: চাঁদপুর শহরের আব্দুল করিম পাটওয়ারী সড়কে চিত্রলেখা মোড়ের স্বর্ণ ব্যবাসয়ী বিল্লাল হোসেন শেখ ও তার ভাই শান্ত ইসলাম শেখের দীর্ঘদিনের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) দুপুরে ওই সড়কের স্বর্ণ মার্কেট এলাকায় মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করে বাংলাদেশ জুয়েলার্স এসোসিয়েশন (বাজুস) চাঁদপুর জেলা শাখা।

সংগঠনের জেলা শাখার সভাপতি  মোস্তফা ফুল মিয়ার সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মানিক পোদ্দারের সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন সংগঠনের সহ-সভাপতি মানিক মজুমদার, অজিত সরকার, জয়রাম রায়, সমির বনিক, সহ-সাধারণ সম্পাদক নজির আহমেদ, রঞ্জন ঘোষ, জামিল আহম্মেদ, মাসুদ ও কোষাধ্যক্ষ বাবুল কর্মকার।

এ সময় বক্তারা বলেন, স্বর্ণ ব্যবসায়ী বিল্লাল ও শান্ত দীর্ঘদিন আমাদের ব্যবসায়ী পরিবেশন নষ্ট করছে। তাদের বিষয়ে অন্য ব্যবসায়ীদের অনেক অভিযোগ। আমরা চাই তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসন কঠোর ব্যবস্থা নিবে এবং আমাদেরকে তাদের অত্যাচার থেকে পরিত্রান দিবে।

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে মানববন্ধন কর্মসূচি চলাকালীন সময়ে জেলা সদরের সকল স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা প্রায় আধাঘন্টা দোকান বন্ধ রাখেন।

এর আগে বুধবার (২৪ এপ্রিল) দুপুরে এক নারী ক্রেতাকে ডেকে নেয়াকে কেন্দ্র করে স্বর্ণ বিতান ও বিসমিল্লাহ গিনি হাউস নামে দুই স্বর্ণ ব্যবসায়ীর দন্ধে মারামারিতে উভয় পক্ষের ৬ জন গুরুতর আহত হয়।

আহতরা হলেন-স্বর্ণ বিতানের জামিল আহমেদ রিপন (৩৮), জাফর (৪২), নোলক জুয়েলার্সের সাদেক হোসেন হৃদয় (২৮), বিসমিল্লাহ গিনি গোল্ড জুয়েলার্সের সত্বাধিকারী শান্ত ইসলাম (২৬) ও তার ভাই বিল্লাল হোসেন শেখ (৩০) ও দাসদী গ্রামের জাহাঙ্গীর খানের স্ত্রী শারমিন আক্তার (৩২)। পরে তারা স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নেয়।

বুধবার (২৪ এপ্রিল) দুপুরে শহরের চিত্রলেখা মোড়াস্থ আব্দুল করিম পাটোয়ারী সড়কে এ ঘটনা ঘটে। এমন ঘটনার খবর পেয়ে চাঁদপুর সদর মডেল থানা পুলিশ ও নতুন বাজার ফাঁড়ি পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

আহতরা হলেন, স্বর্ণ বিতানের জামিল আহমেদ রিপন (৩৮), জাফর (৪২), নোলক জুয়েলার্সের সাদেক হোসেন হৃদয় (২৮), বিসমিল্লাহ গিনি গোল্ড জুয়েলার্সের সত্বাধিকারী শান্ত ইসলাম (২৬) ও তার ভাই শেখ মোঃ বিল্লাল হোসেন (৩০) ও দাসদী গ্রামের জাহাঙ্গীর খানের স্ত্রী শারমিন আক্তার (৩২)। তারা বর্তমানে চাঁদপুর সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

স্থানীয় স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা জানান, বিল্লাল ও তার ভাই শান্ত প্রায় সময়ই অহেতুক বিষয় নিয়ে ওই এলাকার একাধিক স্বর্ণ ব্যবসায়ীদেরকে গাল, মন্দসহ ঝগড়া ঝাটি করে বেড়ান। এ নিয়ে তাদের দুই ভাইয়ের বিরুদ্ধে ইতিপূর্বে সকল স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা মিলে চাঁদপুর মডেল থানায় কয়েকটি অভিযোগও দায়ের করেছেন। ঘটনার দিন দুপুরে পূর্বের মতো শান্ত ও বিল্লাল একই ধরনের আচরণ করলে সকল স্বর্ণ ব্যবসায়ী ও পথচারীরা ক্ষিপ্ত হয়ে তাদের সেখান থেকে থাপ্পর চড় মেরে তাড়িয়ে দেন।

ফম/এমএমএ/

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | ফোকাস মোহনা.কম