সেরা নাচিয়ে প্রতিযোগিতায় ইলিশ উৎসবের চতুর্থ দিন

চাঁদপুর: সোমবার ( ১৯ সেপ্টেম্বর) বিকেলে শিল্পকলা একাডেমিতে চতুর্থ দিনের ১৪তম জাতীয় ইলিশ উৎসব অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।
ইলিশ উৎসবের চতুর্থ দিনের শুরুতে অনুষ্ঠিত হয় সেরা নাচিয়ে প্রতিযোগিতা। সেরা নাচিয়ে প্রতিযোগীতায় অংশ নেয় সোহানা, কথা পাল, নাজনীন ইশরাত, রুবাইয়া তাননীম রুবা, তনুশ্রী রানী দত্ত, দোলা দাস দেওয়ান। নাচের প্রতিযোগিতায় প্রথম হয় দোলা দাস দেওয়ান, দ্বিতীয় হয় রুবাইয়া তাসনীম রুবা, তৃতীয় হয় সোহানা।
এরপর ১৪তম জাতীয় উৎসবের চতুর্থ দিনে বিকেল পাঁচটায় শুরু হয় “জাটকা ও মা ইলিশ সংরক্ষণের মৌসুমী সকল মাছ ধরার নৌকা প্রশাসনের হেফাজতে রাখা” জরুরি বিষয়ক মুক্ত ভাবনা অনুষ্ঠিত হয়।
চাঁদপুর টেলিভিশন সাংবাদিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক কাদের পলাশের পরিচালনায় আলোচনায় অংশ নেন ডিভিসি’র চাঁদপুর প্রতিনিধি নজরুল ইসলাম আতিক, বাংলা টেলিভিশনের ইকবাল বাহার, এখন টেলিভিশনের তালহা জুবায়ের, দেশটিভি’র লক্ষণ চন্দ্র সূত্রধর, আরটিভির শরীফ চৌধুরী বিজয় টেলিভিশনে সোহেল রুশদি।
এরপর শুভ দাসের পরিচালনায় লক্ষীপুরের লতিকা নৃত্যালয় নৃত্যানুষ্ঠান করে। এছাড়া বিশ্বনাথ দাস এর পরিচালনায় উদয়ন সঙ্গীত বিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করে।
এরপর ১৪তম জাতীয় ইলিশ উৎসব-এ গোলটেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।
জাতীয় ইলিশ উৎসবের সচিব ও শাহরাস্তি পৌরসভা সচিব রোটারিয়ান তোফায়েল আহমেদ শেখের সভাপ্রধানের সভাপতিত্বে “সকল নিবন্ধনকৃত ছেলেদের জীবন বীমার আওতায় আনা জরুরি” বিষয়ক গোলটেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।
চতুরঙ্গ সাংস্কৃতিক সংগঠনের মহাসচিব হারুনুর রশিদের উপস্থাপনায় গোলটেবিল আলোচনায় আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভারতের ত্রিপুরা থেকে আগত আবৃত্তিকার শাওলি রায়, ভারত ত্রিপুরার সাংবাদিক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব অমিত ভৌমিক, ভারত ত্রিপুরার সান্দন পত্রিকা টেলিভিশনের পরিচালক অরিন্দম দে, চতুরঙ্গ সাংস্কৃতিক সংগঠনের সভাপতি বিনয় ভূষণ মজুমদার, জাতীয় ইলিশ উৎসব এর মহাসচিব কাজী শাহাদাত।
ভারতের ত্রিপুরা থেকে আসা শাওলি রায় আবৃতি করে।
শাওলি রায়ের আবৃতির পরপরই শিপ্রা মজুমদার এর পরিচালনায় অগ্নিবীণা সাংস্কৃতিক সংগঠন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিচালনা করে। এরপর রং এর ঢোল বাংলা ব্যান্ড সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিচালনা করে।
ফম/এমএমএ/

শাহরিয়া পলাশ | ফোকাস মোহনা.কম