সাড়া ফেলেছে ফারহান-তিশায় মুগ্ধতা ‘দরদ’

ছবি: সংগ্রহীত।

এবার ঈদে প্রচার হওয়া শত শত নাটকের ভিড়ে সাড়া ফেলেছে মহিদুল মহিম পরিচালিত নাটক ‘দরদ’। এতে মুশফিক ফারহান, তানজিন তিশা এবং ছোট্ট মুনতাহা এমেলিয়ার অভিনয় মুগ্ধতা ছড়াচ্ছে দর্শকমহলে।

নাটকটি প্রচারের পরপরই প্রশংসা কুড়াচ্ছে, সেই সঙ্গে ভিউও বাড়ছে ক্রমান্বয়ে। মুক্তির ২৬ ঘণ্টাতেই এটি দেখেছেন বিশ লাখেরও বেশি দর্শক। প্রতিবেদনটি লিখা পর্যন্ত এটি দেখেছেন ২৬ লাখেরও বেশি দর্শক। ফেসবুক, ইউটিউব সবখানেই বইছে প্রশংসার ঝড়।

ইউটিউবে মন্তব্যের ঘরে নাজমুল নামে একজন লিখেন, এবার ঈদে আমার দেখা শ্রেষ্ঠ নাটক। ভিউ বেশি-কম দিয়ে ভালো-মন্দ বিচার করা উচিত নয়। ঘটনাটি মনে করিয়ে দেয় আমাদের বরগুনার লঞ্চ ট্র্যাজেডি।

আরেকজন লিখেন, চোখের পানি ধরে রাখতে পারিনি। শেষ দৃশ্যের জন্য মোটেও প্রস্তুত ছিলাম না। সময়োপযোগী এমন একটা নাটক নির্মাণের জন্য নির্মাতাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

মৈত্রী গাঙুলি লিখেন, শেষটা এমনভাবে হবে, সেটা কোনভাবেই প্রত্যাশা করিনি। এত রোমান্টিক, হৃদয়স্পর্শী নাটকের শেষ এমন হতেই হবে কেন? খুবই অপ্রত্যাশিত। বৈশাখী চরিত্রে তানজিন তিশার পারফরম্যান্স ব্রিলিয়ান্ট আর ফারহান ইলেকট্রোফায়িং। দুজনের কি চমৎকার অভিনয়! আমার মনে হয়, এই জুটি পর্দায় আগুন লাগানোর মত একটা জুটি। ছোট্ট শিশুটিকে ভীষণ মিষ্টি লাগছিলো। নির্মাতা মহিদুল মহিমকে ধন্যবাদ এমন হৃদয়স্পর্শী একটা নাটক নির্মাণের জন্য।

নির্মাতা মহিদুল মহিম বলেন, এই কাজটাতে পুরো শুটিং ইউনিটের সবারই অনেক পরিশ্রম ছিলো। ফারহান ভাই, তিশা আপু দুজনেই তাদের সেরা পারফরম্যান্সটা দিয়েছেন। যার কারণে কাজটাও ভালো দাঁড়িয়েছে এবং দর্শক পছন্দ করছেন। এখন পর্যন্ত শতভাগ পজেটিভ মন্তব্য পেয়েছি, আলহামদুলিল্লাহ।

ফম/এমএমএ/বিনোদন/

ফোকাস মোহনা.কম