শেরপুর পৌর সচিবের বিরুদ্ধে নিয়মিত অফিস না করে বেতন ভাতা উত্তোলনের অভিযোগ

শেরপুর (বগুড়া):  বগুড়ার শেরপুর পৌরসভার সচিব মো. ইমরোজ মুজিবের বিরুদ্ধে নিয়মিত অফিস না করে বেতন ভাতা উত্তোলনের অভিযোগ উঠেছে। একারণে তার অধিনস্থ কয়েকজন কর্মকর্তা-কর্মচারীও নিয়মিত অফিস করছেন না। ফলে পৌরসভার কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়েছে। পৌরবাসি পৌর সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

পৌরসভার একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা জানান, ১৮৭৬ সালের স্থাপিত প্রথম শ্রেণির পৌরসভায় মো. ইমরোজ মুজিব গত ১ এপ্রিল মাসে সচিব হিসাবে যোগদান করেন। এর পর থেকে তিনি নিয়মিত অফিস না করে মাস শেষে বেতন ভাতার ৫৬ হাজার ১১৩ টাকা উত্তোলন করেন।

গতকাল রোববার দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে সাংবাদিকরা সরেজমিনে শেরপুর পৌরসভায় গিয়ে তার অফিস কক্ষ তালাবদ্ধ দেখতে পায়।

এ সময় উপস্থিত ভারপ্রাপ্ত মেয়র (১ নং প্যানেল মেয়র) মো. নাজমুল আলম খোকনের নিকট সচিবের অনুপস্থিতির কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন সচিব মো. ইমরোজ মুজিব পৌরসভায় যোগদানের পর থেকেই নিয়মিত অফিস করেন না। তিনি ছুটি ছাড়াই কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকেন এবং পরে এসে হাজিরা খাতায় কয়েকদিনের স্বাক্ষর একদিনেই করে থাকেন।

তিনি বলেন গত ১৭ নভেম্বর অফিস করার পরে আজ ২৪ নভেম্বর কোনপ্রকার ছুটি ছাড়াই অফিসে অনুপস্থিত আছেন। এদিকে শেরপুর পৌরসভার ৪২ জন কর্মকর্তা-কর্মচারির ২২ মাসের বেতন বাকি থাকলেও পৌর সচিবের মাত্র ১ মাসের বেতন বাকি রয়েছে।

উল্লেখ্য বগুড়া পৌরসভায় দুর্নীতির অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনে তার বিরুদ্ধে একটি মামলা তদন্তাধীন রয়েছে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে পৌর সচিব মো. ইমরোজ মুজিবের ০১৭২২ ৬১৮৫৬৩ নং মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

ফম/এমএমএ/

সংবাদদাতা | ফোকাস মোহনা.কম