শিশুদের মনে দেশপ্রেম ও সাহস যোগাতে হবে: কামরুল হাসান

চাঁদপুরে বই বিতরণ উৎসব

শিশুদের হাতে নতুন বছরের বই তুলে দিচ্ছেন চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) কামরুল হাসান। ছবি: ফোকাস মোহনা.কম।

চাঁদপুর : চাঁদপুর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগের আয়োজনে বই বিতরণ উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রবিবার (১ জানুয়ারি) সকাল ১০টায় শহরের হাসান আলী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বই বিতরণ উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন এবং শিশু শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দেন জেলা প্রশাসক (ডিসি) কামরুল হাসান।

তিনি বক্তব্যে বলেন, হাসান আলী মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি ভাল ফলাফল করার পিছনে অনেকের ভূমিকা রয়েছে। আমি চাই অন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো এই প্রতিষ্ঠানের মত করে গড়ে উঠুক। বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী শুভ্রা সব বিষয়ে অনেক মেধাবি। সে অন্য শিক্ষার্থীদের জন্য উদাহরণ হতে পারে। আত্মবিশ্বাস ও অনুশীলন থাকলে যে কোন মানুষকে গড়ে তোলা সম্ভব।

ডিসি অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে বলেন, শিশুদের প্রতি অভিভাবকেরও অনেক গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব রয়েছে। আপনারা শিশুদের প্রতি খেয়াল রাখবেন। শিশুদের মনে দেশপ্রেম ও সাহস যোগাতে হবে।

তিনি ছোট বেলার স্মৃতিচারণ করে বলেন, একসময় আমরা বই পেতাম বছর শুরু হওয়ার কয়েকমাস পর। তখন প্রাথমিক শিক্ষার বই বিনামূল্যে পেতাম না। কিন্তু বর্তমান সরকার প্রধান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের বছরের শুরুতে বিনামূল্যে সব শিক্ষার্থীর হাতে বই তুলে দিচ্ছেন। এই মহান কাজের জন্য আমরা প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞা প্রকাশ করছি।

তিনি বলেন, প্রাথমিক বিদ্যালয় আমার আনন্দের একটি জায়গা। সেখানে গেলে অনেকগুলো ফুটন্ত ফুল একসাথে দেখতে পাই।
চাঁদপুর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ফাতেমা মেহের ইয়াসমিনের সভাপতিত্বে ও বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইসমত আরা শাফি বন্যার সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মোছাম্মৎ রাশেদ আক্তার, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সানজিদা শাহনাজ, বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি হাসান ইমাম বাদশা, চাঁদপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র ফরিদা ইলিয়াছ, চাঁদপুর প্রেসক্লাব সভাপতি এএইচএম আহসান উল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক আল-ইমরান শোভন প্রমূখ।

পরে জেলা প্রশাসক শহরের হাসান আলী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, মাতৃপীঠ সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, কালেক্টরেট স্কুল এণ্ড কলেজ নতুন বই বিতরণ করেন। চাহিদার আলোকে জেলার মাধ্যমিক-প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ইতোমধ্যে ৬৩ লাখ ৫২ হাজার কপি বই এসেছে।
ফম/এমএমএ/

শাহরিয়া পলাশ | ফোকাস মোহনা.কম