লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নে বসতঘরে আগুন দেয়ার অভিযোগ

চাঁদপুর সদর উপজেলাধীন ১০নং লক্ষীপুর মডেল ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডস্ত গাজী বাড়ীর মৃতঃ মিজান গাজীর বসতঘরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আগুনে পুরিয়ে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

আগুন নিভাতে গিয়ে পতিপক্ষের হামলায় আহত হয়ে চাঁদপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন স্থানীয় রব গাজীর ছেলে আবুল গাজী (৩২) সাত্তার খান (৩৫) মৃতঃ মিজান গাজীর স্ত্রী বসতঘরের মালিক আছিয়া বেগম (৫০) ও মেয়ে খাদিজা বেগম (১৮)। এঘটনায় আছিয়া বেগম বাদী হয়ে রাতেই চাঁদপুর সদর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

মঙ্গলবার ( ১৯ নভেম্বর) রাত আনুমানিক সারে ৭টায় আগুন লাগানো ঘটনাটি ঘটে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্বিস ও স্থানীয় লোকজন আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। এসময় ঘরে কেউ ছিলোনা,

অপর দিকে আগুন নিভাতে গিয়ে হামলার স্বীকার বসতঘরের মালিক আছিয়া বেগম, মেয়ে খাদিজা বেগম ও সাত্তার খান প্রাথমিক চিকিৎসায় নিয়েছেন। গুরুতর আহত আবুল গাজী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

মামলার বাদী আছিয়া বেগম জানান, ঘরে আগুন লাগানোর পূর্বে আমার মেয়ে আমাকে চিকিৎসা করানোর জন্য চাঁদপুর সদর হাসপাতালে উদ্দেশে রওয়ানা দেয়, পথিমধ্যে খবর পাই আমার ঘরে আগুন লেগেছে, তাৎক্ষনিক বাড়ীতে এসে দেখতে পাই আমার বসতঘরটি পুরে ছাই হয়ে গেছে।

তিনি আরো জানান, আমার মেয়ে খাদিজা বেগম গার্মেন্টসে চাকুরি করে তার উপার্জন দিয়ে আমাদের সংসার চলে। এই মেয়েকে স্থানীয় বেস কয়েকজন যুবক দীর্ঘদিন ধরে উত্তপ্ত কর আসছে। এঘটনায় আমি তৎকালীন পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার বরাবর লিখিত অভিযোগ করলে, তিনি তাদেরকে ডেকে এনে শতরর্ক করে দেয়ার পরেও তারা উত্তপ্ত করে আসছে। আমার ঘরে তারা ও তাদের সহযোগীরা পরিকল্পিত ভাবে আগুন দিয়েছে এতে আমার প্রায় ১লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

এদিকে আগুন নিভাতে গিয়ে হামলার ঘটনায় যাদের বিরুদ্ধে চাঁদপুর সদর মডেল লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে তারা হলোঃ স্থানীয় হাফেজ খানের ছেলে মহসিন খান (৩২) আবুল খানের ছেলে আরিফ খান (২৮) হাফেজ খানের ছেলে সাদ্দাম হোসেন (২৮) আবুল খানের ছেলে মাসুম খান (২৫) বসির খান (৩২) মোস্তফা দফাদারের ছেলে মাসুদ দফাদার (৪০) হাফেজ খানের ছেলে জাকির (২৪) হানিফা (৪০) জাহিদ (২৩)  ইবু খান (২৯) আবুল খান (৩০)।

ফম/এমএমএ/

আব্দুল্লাহ আল মামুন | ফোকাস মোহনা.কম