রাস্তা না থাকায় কাঠাঁলিয়া গ্রামবাসীর চরম দুর্ভোগ

কচুয়া (চাঁদপুর): চাঁদপুরের কচুয়া ও মতলব দক্ষিনের সীমান্তবর্তী পশ্চিম সহদেবপুর ইউনিয়নে কাঠালিয়া গ্রামের অবস্থান। এ গ্রামে প্রায় ১ হাজার ২শত লোকের বসবাস। দূর থেকে দেখলে মনে হবে এটি যেন একটি দ্বীপ। গ্রামের পাশ দিয়ে বয়ে গেছে সুন্দরী খাল। যে খাল সরাসারি ডাকাতিয়া নদীর সাথে মিলেছে। এ গ্রামের অধিকাংশ মানুষ মৎস্য আহরণ ও কৃষি কাজের সাথে জড়িত। গ্রাম থেকে বের হতে হলে বর্ষা মৌসুমে একমাত্র অবলম্বন নৌকা। আর শুকনো মৌসুমে জমির আইল ধরে প্রায় ২ কিলোমিটার পায়ে হেঁটে স্থানীয় আলীয়ারা বাজার হয়ে বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত করতে হয় গ্রামবাসীর।

গ্রাম থেকে বের হওয়ার কোন রাস্তা না থাকায় শিক্ষা ব্যবস্থায় পিছিয়ে পড়েছে এ গ্রামবাসী। গ্রাম বাসীর চলাচলের রাস্তা না থাকার দরুণ অতিবৃষ্টিতে খাল ভরাট হয়ে ও নদীতে জোয়ার আসলে সল্প সময়ে জমির আইল ঢুবে গিয়ে মাঠের ফসলি জমি পানিতে তলিয়ে যায়।

ওই গ্রামের কৃষক বিমল সরকার জানান, স্বাধীনতার ৫০ বছর পেরিয়ে গেলেও আলীয়ারা বাজার হতে আমাদের গ্রামে আসতে হলে বর্ষা মৌসুমে নৌকা আর শুকনো মৌসুমে পায়ে হেঁটে আসা ছাড়া কোন উপায়অন্ত নেই। গ্রামের কারো অসুখ-বিসুখ হলে প্রায় ২ কিলোমিটার জমির আইল হেঁটে রোগীদের কাঁধে নিয়ে আলীয়ারা বাজার হয়ে হাসপাতালে যেতে হয়। অনেক সময় বিনা চিকিৎসায়ই অনেক রোগীকে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়তে হয়েছে। হেঁটে যাওয়ার ভয়ে কোমলমতী শিশুরা স্কুলে যেতে চায়না। তাতে শিক্ষায় পিছিয়ে পড়েছে এ গ্রামের শিশুরা।

ইউপি চেয়ারম্যান মো. আলমগীর হোসেন বলেন, অনেক বছর ধরে ওই গ্রামে রাস্তা নেই। রাস্তা নির্মাণে জমির মাালিকানা নিয়ে কিছু সমস্যা রয়েছে। যার ফলে রাস্তা নির্মাণ বিলম্বিত হচ্ছে। তবে মতলব ও কচুয়ার জনপ্রতিনিধির সমন্বয়ে দ্রুত রাস্তাটি নির্মানে চেষ্টা চলছে।

উপজেলা প্রকৌশলী মো. আব্দুল আলিম লিটন বলেন, কাঠালিয়া গ্রামের রাস্তাটি নির্মাণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

ফম/এমএমএ/ইসমাইল/

ইসমাইল হোসেন বিপ্লব | ফোকাস মোহনা.কম