রামপুরে আতঙ্কের নাম আমির হোসেন

চাঁদপুর: চাঁদপুর সদর উপজেলার ৫ নং রামপুর ইউনিয়ে জোরপূর্বক জমি দখল ও ভুক্তভোগী পরিবারকে এলাকা ছাড়ার অভিযোগ উঠেছে । এই ঘটনাটি ঘটেছে রামপুর ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের উত্তর সকদী তালুকদার বাড়ি এলাকায়।

তালুকদার বাড়িসহ ঐ এলাকার সাধারণ মানুষের কাছে এক আতঙ্কের নাম মৃত শফিকুর রহমান তালুকদারের সন্তান আমির হোসেন তালুকদারসহ তার ৯ ভাই। তাদের অত্যাচার আর পেশিশক্তির কারনে এলাকা বাসীকে থাকতে হয় চাপা আতঙ্ক আর উৎকন্ঠায়।

তাদের পেশিশক্তি আর অত্যাচারের কারনে জমি হারানো ভুক্তভোগী পরিবারের পক্ষ থেকে মরহুম ওয়াজ উদ্দিন বেপারির ছেলে মোঃ আবুল খায়ের বেপারি বলেন,  আমার বাবা তার ২ মেয়ে জাকিয়া বেগম ও ফাতেমা বেগম এবং আমাকে ১২৪ দাগে ৩০ শতাংশ খরিদকৃত জমি সাফকবলা রেজিষ্ট্রি করে দেন। পরবর্তীতে আমরা নিজেদের প্রয়োজনে জমি বিক্রয় করতে গেলে আমির তালুকদার ও তার অন্যন্যা ভাইদের কারনে কেউ খরিদ করতে সাহস পায় নি। পরে এক প্রকার বাধ্য হয়ে তুলনামূলক কম মূল্যে ১৮ শতাংশ জমি মৃত শফিকুর রহমান তালুকদারের ছেলেদের কাছে বিক্রি করি। কিন্তু এখানেই আমির তালুকদার ও তাদের ভাইদের চাহিদা থেমে থাকেনি। তারা জোর পূ্বর্ক ১৮ শতাংশ জমির পরিবর্তে দখল করে ২৪ শতাংশ জমি। বেদখলকৃত এই অতিরিক্ত ৬ শতাংশ জমির প্রকৃত মালিকানা ফিরে পেতে চাইলেই আমির তালুকদার গংদের অত্যাচার ও নির্যাতন বেড়ে যায়। যার কারণে আমি প্রাণ ভয়ে এলাকায় থাকতে পারি না।

এই বিষয় নিয়ে স্থানীয় পর্যায়ে কয়েক দফা বসা হয়ছে। কিন্তু আমির তালুকদার গংরা কাউকেই মানে না। এমনকি তারা উক্ত ৬ শতাংশ জমির বেদখল ধরে রাখার জন্য ভূয়া আপস নামার কোর্ট এপিডেবিট করেন যা একেবারেই ভিত্তিহীন।

এলাকাবাসীর সাথে কথা বলেও জানা যায়, মৃত শফিকুর রহমান তালুকদারের ছেলে আমির হোসেন তালুকদার, আক্তার হোসেন তালুকদার, মনির হোসেন তালুকদার, সুমন তালুকদার, মাসুদ তালুকদারসহ এরা ৯ ভাই সন্ত্রাসী স্বভাবের লোক। তারা গায়ের জোরে এমন অনেক অসহায় পরিবারের সম্পদ আত্মসাৎ করেছে। আমরা যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে জোর দাবি জানাই তারা যেন সঠিক তদন্ত সাপেক্ষে ভোক্তাভোগী পরিবার তাদের ন্যায় জমি বুঝিয়ে দেয়।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত পরিবারের সাথে কথা বলতে চাইলে কাউকে খুঁজে পাওয়া নি।

ফম/এমএমএ/

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | ফোকাস মোহনা.কম