যুবলীগ তাদের সকল কর্ম তৎপরতায় সোনার বাংলা বিনির্মাণে অদম্য সৈনিক

কচুয়া: কচুয়ায় যুবলীগের ৪৭তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপিত হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে সোমবার সকালে কচুয়া উপজেলা যুবলীগের উদ্যোগে একটি বিশাল র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালীটি পৌর বাজারের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা আওয়ামীলীগের দলীয় কার্যালয়ের সামনে শেষ হয়। র‌্যালী শেষে অনুষ্ঠিত হয় যুব সমাবেশ।

উপজেলা যুবলীগের সভাপতি নাজমুল আলম স্বপন এর সভাপতিত্বে ও উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহজালাল প্রধান জালালের সঞ্চালনায় যুব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন- সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীর এমপি।

এসময় তিনি বলেন- আজকে কচুয়ার ২৪৩টি গ্রাম থেকে আমার যুব ভাইয়েরা এখানে এসে সমাবেত হয়েছেন এবং তারুণ্যের জয়ধ্বনী করে এখানে এসেছেন তাদেরকে অভিনন্দন জানাই। আজকে এ যুবলীগ সারা কচুয়ার আওয়ামী যুবলীগের এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার নিলয় নিয়ে সকলের সামনে প্রতিপাদ্য হয়েছে।

আমি প্রায় ৩০-৩৫ বছর ধরে এ যুবলীগের সাথে সংশ্লিষ্ট ছিলাম। আমার এ সংশ্লিষ্টতার পরিচিতির আলোকে বলতে চাই, এই যুবলীগ কচুয়াতে নিজেদেরকে আদর্শ ও অনুশীলনকারী হিসেবে, বঙ্গবন্ধুর চেতনার উত্তরাধীকারী হিসেবে, জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের আওতাধীন সমাজকর্মী হিসেবে নিজেদেরকে সকল সন্দেহের উর্ধ্বে প্রতিষ্ঠিত করেছেন কচুয়া উপজেলা যুবলীগ। সেই প্রেক্ষিতে ভবিষ্যতে তাদের ভূমিকা আরো সমোজ্জ¦ল করার অভিপ্রায় ধারণ করে তাদেরকে এই বলে আন্তরিক অভিনন্দন দিতে চাই, তাদের সকল কর্ম তৎপরতার সৃজনশীল প্রয়োগ করে সোনার বাংলা বিনির্মাণে তারা অদম্য সৈনিক।

আপনাদের একটি সুখবর দিতে চাই, আমাদের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা গত বছর যখন চাঁদপুরে এসে ছিলেন তখন কচুয়া থেকে যাওয়ার পথে আওয়ামীলীগের কর্মীদের প্রতিকূলে বাঁধা সৃষ্টি করে জনৈক গোলাম হোসেন ও তার অনুসারীরা। আমাদের কর্মীরা যখন বাঁধা অতিক্রম করে জনসভায় পৌছে তখন জনৈক আবু তালেব বাদী হয়ে গোলাম হোসেন গংরা আওয়ামীলীগ কর্মীদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করে সেই মামলার রায় আজকে খারিজ হয়েছে। এবং এ খারিজ হওয়ার প্রেক্ষিতে আজ বলতে চাই, সত্যের জয় অবশ্যম্ভাবী। ভবিষ্যতে তারা যাতে কোন অপকর্ম করতে না পারে তাদের সকলকে ফৌজদারী কার্যবিধি ২১১ধারানুযায়ী মিথ্যা মামলা দায়ের করার অভিযোগে এ গোলাম হোসেন ও তালেব গংদের বিরুদ্ধে মামলা করার নির্দেশ দিয়ে গেলাম।

প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন- চাঁদপুর জেলা যুবলীগের আহবায়ক মিজানুর রহমান ভূইয়া কালু। বিশেষ বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন- চাঁদপুর জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক সালাউদ্দিন মোহাম্মদ বাবুর।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- কচুয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহজাহান শিশির, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আইয়ুব আলী পাটওয়ারী, সহসভাপতি জি.এম. আতিকুর রহমান, কামরুন্নাহার ভূইয়ার, সাধারণ সম্পাদক সোহরাব হোসেন চৌধুরী সোহাগ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, বিশিষ্ট শিল্পপতি ও সমাজ সেবক ফয়েজ আহমেদ স্বপন, জেলা পরিষদের সদস্য রওনকারা রত্না মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সুলতানা খানম।
এছাড়া বক্তব্য রাখেন- উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক মোফাচ্ছেল হোসেন খান, কড়ইয়া ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক তারেক সামস মিঠু, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইব্রাহিম খলিল বাদল প্রমুখ।

ফম/এমএমএ/

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | ফোকাস মোহনা.কম