যাত্রীভাড়া বৃদ্ধির প্রতিবাদে যুব ইউনিয়নের গণস্বাক্ষর কর্মসূচি

চাঁদপুর:  চাঁদপুর পৌর এলাকায় ইজিবাইক ও সিএনজিতে যাত্রীভাড়া বৃদ্ধির প্রতিবাদে বাংলাদেশ যুব ইউনিয়ন চাঁদপুর জেলা কমিটির উদ্যোগে গণস্বাক্ষর কর্মসাচি বৃহস্পতিবার (৩ নভেম্বর) বিকাল শহরের কালীবাড়ি মোড়,হকার্সমার্কেট, পথচারীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার নাগরিকদের স্বাক্ষর সংগ্রহ করা হয়।
গণস্বাক্ষর কর্মসূচী উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী চাঁদপুর জেলা সংসদের সাধারণ সম্পাদক জহির উদ্দিন বাবর। বাংলাদেশ যুব ইউনিয়ন চাঁদপুর জেলা কমিটির সভাপতি ও কেন্দ্রীয় সাংস্কৃতিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন জেলা কমিটির সদস্য ও গণস্বাক্ষর কর্মসূচী বাস্তবায়ন পরিষদের আহবায়ক সৌরভ ও সদস্য সচিব মানিক খান। সভা পরিচালনা করেন অমিত কর।
উপস্হিত ছিলেন, কবি ও লেখক রফিকুজ্জামান রণি, নাট্যকর্মী এমটি ইসলাম তাপু, শাহ আলম চৌধুরীসহ আরও অনেকে।
এ সময় নেতৃবৃন্দ বলেন, সম্প্রতি চাঁদপুর পৌর এলাকায় ইজিবাইক ও  সিএনজিতে অযৌক্তিকভাবে ভাড়াবৃদ্ধি করা কোনভাবেই উচিৎ হয় নি।সাধারণ মানুষ আজ দিশেহারা। আর্থিক দৈন্যতায় মানুষ আজ পর্যুদস্ত। দ্রব্যমূল্যের উর্দ্ধগতিতে দুর্নীতিবাজ ও লুটেরা ছাড়া সকল মানুষ চরম সংকটে রয়েছে। এর পাশাপাশি গরীব চালক ভাইয়েরাও একই ভাবে সংকটে আছে।তাই এ দূরবস্হায় সবাই সাফার করছে। এ জায়গায় পৌর মেয়র মহোদয় কিছু কার্যকর পদক্ষেপ নিতে পারতেন। তিনি যদি লাইসেন্স নবায়ন ফি ও নতুন লাইসেন্স ফি ৫০০০/ টাকায় মধ্যে জমা নেন,তাহলে এ জায়গায় মালিক-চালকদের সাশ্রয় হতো। এবং তিনি পৌরসভায় সকল ধরনের চাঁদা উত্তোলন বন্ধসহ চাঁদপুর-ফরিদগঞ্জ টোল আদায় বন্ধের ব্যবস্হা নিলে ভাড়া বৃদ্ধির প্রয়োজন থাকতো না। আমরা মনে করি একজন বিচক্ষণ ব্যক্তি। তিনি এ বিষয়টি নিয়ে দ্রুত ব্যবস্হা গ্রহণ করবেন এবং অবিলম্বে যাত্রী হয়রানী বন্ধ করবেন।
বক্তারা আরও বলেন একটি পরিবারের ৪/৫ জন লোক যদি যাতায়ত করেন তাহলে প্রতি পরিবারের কমপক্ষে ২০০০ টাকা থেকে ৩০০০ টাকা অতিরিক্ত টাকা পকেট থেকে যাবে যা কোনভাবেই কাম্য নয়। তাই মানুষের কষ্ট লাঘব করতে ও সংক্ষুব্দতা কমাতে চাঁদপুর পৌর এলাকার যাত্রীভাড়া পূর্বের জায়গায় নিয়ে আসতে হবে।
ফম/এমএমএ/

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি | ফোকাস মোহনা.কম