মৈশাদিতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে সমাধান হল পথের প্রতিবন্ধকতা

চাঁদপুর: চাঁদপুর সদর উপজেলার মৈশাদী ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের মিজি বাড়ীর ৬০ বছরের চলাচলের পথ বন্ধ করে দেয় পার্শবর্তী মৃধা বাড়ীর সাহেদ মৃধা গংরা। পরবর্তিতে প্রশাসন ও ইউপি চেয়ারম্যানের হস্তক্ষেপে তা খুলে দেওয়া হয়েছে।
জানাযায়,নজির আহম্মেদ মিজির সাথে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মৈশাদী ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের মিজি বাড়ীর ৬০ বছরের চলাচলের পথটি বন্ধ করে দেয় পাশ্ববর্তি মৃধা বাড়ীর মৃতঃ আবুল খায়ের মৃধার পুত্র সাহেদ মৃধা ও তার পুত্র মাহবুব মৃধা,ভাই সিরাজ মৃধা সহ মিজান মৃধা, জাকির মৃধা ও শাহাদাৎ মৃধা। এতে করে দির্ঘ দিনের চলাচলের রাস্তাটি বন্ধ থাকার কারনে সেখানে বসবাসরত বাড়ীর লোকজন এবং একটি মহিলা মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের আসা-যাওয়ায় ভিষন কষ্ট করে বিলের মধ্যদিয়ে কাদা পানি দিয়ে বের হতে হতো।
এ বিষয়ে নজির আহম্মেদ চাঁদপুর সদর মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।
অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তকারী কর্মকর্তা এস,আই সাইদুর রহমান শনিবার (১৯ নভেম্বর) সকালে সরজমিনে গিয়ে ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় তাত্ক্ষণিক ভাবে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম পাটোয়ারীকে বিষয়টি অবহিত করেন। চেয়ারম্যানের নির্দেশে পরবর্তিতে উভয়ের উপস্থিতিতে চলাচরের পথের সেই বেড়াটি সরিয়ে দেওয়া হয়।
এ বিষয়ে ভুক্তভোগী নাজির আহম্মেদ ও মহিলা মাদ্রাসার শিক্ষকরা জানান, প্রায় সময়ই তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সাহেদ মৃধা গংরা তাদের দলবল নিয়ে আমাদের চলাচলের পথটি বন্ধ করে দেয়। ইতোমধ্যে কয়েকবার বন্ধকরে দেয়ার পর তা চেয়ারম্যানের হস্তক্ষেপে পুনরায় খুলে দেওয়া হয়েছে। তাই আমরা এবার নিরুপায় হয়ে থানার হস্তক্ষেপ কামনা করেছি। তাদের ও চেয়ারম্যানের সহযোগিতায় এবারও পথের মাঝে দেওয়া বেড়াটি খুলে দেওয়া হয়েছে। সাহেদ মৃধাদের অত্যাচারের হাত থেকে আমাদের বাড়ী একমাত্র চলাচলের পথটি স্থায়ীভাবে রক্ষা পেতে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের সু-দৃষ্টি কামনা করছি।
ফম/এমএমএ/

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | ফোকাস মোহনা.কম