মেঘনায় লঞ্চের ধাক্কায় নৌকাডুবি, জেলের মৃত্যু

চাঁদপুর: চাঁদপুর সদর উপজেলার হানারচর ইউনিয়নের হরিণা ফেরিঘাট এলাকায় মেঘনা নদীতে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা বরিশালগামী এমভি কর্ণফুলী-৩ লঞ্চের ধাক্কায় নৌকা ডুবে চার জেলে নিখোঁজ হন। তাদের মধ্যে মো. জলিল (১৫) নামে জেলের মরদেহ উদ্ধার করেছে নৌ পুলিশ।

সোমবার (১৬ জানুয়ারি) দুপুরে ঘটনাস্থল ওই স্থান থেকে মো. ফারুক (২০) নামে এক জেলেকে জীবিত উদ্ধার করা হয়। তবে তার সঙ্গে নিখোঁজ হওয়া জলিলের মৃত্যু হয়। এছাড়া এ ঘটনায় আরও দুই জেলে নিখোঁজ রয়েছেন।

এর আগে রোববার (১৫ জানুয়ারি) দিনগত রাতে নদীতে জেলেরা নৌকায় করে মাছ ধরতে গেলে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

হরিণা নৌ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. মিজানুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এ ঘটনায় নিহত ও জীবিত উদ্ধার হওয়া জেলেরা চাঁদপুর সদরের ১১ নম্বর ইব্রাহিমপুর ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের ঈদগাহ বাজারের বাসিন্দা।

ইব্রাহীমপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হাজী আবুল কাশেম খান বলেন, আমি খবরটি থানা ও নৌ পুলিশকে জানিয়েছি। এ ধরনের ঘটনায় আমি নিজেও খুবই মর্মাহত ও শোকাহত। লঞ্চের বিরুদ্ধে এখনও কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

চাঁদপুর সদরের হরিণা নৌ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. মিজানুর রহমান বলেন, ঘন কুয়াশার কারণে এ দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। তবে আমরা খবর পেয়ে জয়নাল মোল্লার ছেলে জলিল (১৫) নামে এক জেলের মরদেহ এবং গফুর বেপারীর ছেলে মো. ফারুককে (২০) জীবিত উদ্ধার করেছি। বর্তমানে মতিন ভূঁইয়ার ছেলে রিয়াদ (১৭) ও নুরুজ্জামান শেখের ছেলে মোক্তার (১৮) নামে দুই জেলে নিঁখোজ রয়েছেন। তবে নিখোঁজ জেলেদের উদ্ধার তৎপরতা ও আইনি কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

ফম/এমএমএ/

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | ফোকাস মোহনা.কম