মতলব উত্তর উপজেলা আ’লীগ সম্পাদক প্রার্থী গাজী মুক্তার

চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার জহিরাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সংগ্রামী সভাপতি, চরকালিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি, বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আলহাজ¦ গাজী মুক্তার হোসেন একজন তরুণ রাজনীতিবিদ। যিনি সবসময়ই জনগণ ও দলের কল্যাণ কামনা করেন। ইত্যোমধ্যে তিনি এলাকার গরীব অসহায় মানুষকে বিভিন্নভাবে সহায়তা ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে অনুদান দিয়ে মানুষের হৃদয়ের স্পন্দন হয়ে ওঠেছেন।

আসন্ন মতলব উত্তর উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলনে তিনি সাধারণ সম্পাদক হিসেবে একজন প্রার্থী। দলের সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, চাঁদপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাড. নূরুল আমিন রুহুল ও জেলা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ যদি তাকে মনোনীত করেন তাহলে তিনি এই পদে একজন অপ্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী হতে পারেন। এ নিয়ে কথা হয় গাজী মুক্তার হোসেনের সাথে।
এক সাক্ষাতে গাজী মুক্তার হোসেন বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শই আমার রাজনীতির অনুপ্রেরণা। তিনি শুধু রাজনীতি করতেন মানুষের কল্যাণের জন্য। জনগণের সুখ শান্তি ছাড়া তিনি বিকল্প কিছু চিন্তা করতেন না। জাতির শান্তিই ছিল তার প্রধান চাওয়া, জাতি ভাল থাকলেই তিনি ভাল থাকা অনুভব করতেন। এমন আদর্শ চিন্তা করাই এক ধরনের ভাগ্যের ব্যাপার। তাই আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শে রাজনীতি করি এবং যতদিন বেঁচে থাকবো ততদিন বঙ্গবন্ধুর আদর্শেই রাজনীতি করবো।
তরুণ এই রাজনীতিবিদ বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শে তার সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা যেমন রাজনীতি করেন। তেমনি দেশের প্রতিটি রাজনীনিতিকেরই উচিৎ এভাবে রাজনীতি করা। তাহলে দেশে দূর্নীতি ও অনিয়মের ছাপ লাগার সুযোগ থাকবে না। বঙ্গবন্ধুর যে স্বপ্ন সোনার বাংলা গড়া, তা বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রী শক্ত হাতে কাজ করছেন। তিনি শুদ্ধি অভিযান পরিচালনা করছেন। সোনার বাংলা গড়তে দরকার পরিচ্ছন্ন নেতকর্মী। দলের হাই লেভেল থেকে জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন এমনকি ওয়ার্ড পর্যায়েও নিষ্ঠাবান যোগ্য নেতৃত্ব প্রয়োজন। তাহলেই সোনার বাংলা গড়তে প্রধানমন্ত্রীর জন্য সহজতর হয়ে উঠবে বলে আমি মনে করি।

গাজী মুক্তার বলেন, মতলব উত্তরের অনেকেই জানে আমি রাজনীতি করি কিছু পাওয়ার জন্যে নয়, মানুষকে সেবা করাই আমার মূল লক্ষ্য। তাই আগামী কাউন্সিলে আমি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে একজন প্রার্থী। উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে আমার ব্যাপক জনপ্রিয়তা রয়েছে। আমি মনে করি মানুষের প্রয়োজনে দল আমাকে সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত করবেন। দলের উচ্চ ও জেলা পর্যায়ের নেতৃবৃন্দের মাঝে আমার ব্যাপারে আলোচনা হচ্ছে। উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়েও আমার ব্যাপক জনপ্রিয়তা আছে। ভোট হলেও আশা করি বিপুল ভোটে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হবো ইনশাল্লাহ।

আগামী দিনে জনগণকে সেবা করার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমি মতলব উত্তর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত হলে জনগণকে সরকারের অঙ্গীকার অনুযায়ী সেবা করবো। দলের নেতাকর্মীদের নিয়ে একটি আধুনিক মতলব গড়তে চাঁদপুর-২ আসনের সাংসদ অ্যাড. নূরুল আমিন রুহুলকে সার্বিক সহযোগীতা করবো। সরকারের ভিশন বাস্তবায়নে যেমন যোগ্য ও নিষ্ঠাবান নেতৃত্বের বিকল্প নেই, তেমনি জনগণকে সেবা করার জন্যেও নিষ্ঠাবান রাজনীতিকের জুরি নেই। সে লক্ষ্যে আমি শতভাগ আশাবাদী দল আমাকে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব দিবেন।

ফম/এমএমএ/

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | ফোকাস মোহনা.কম