বড় বড় সিদ্ধান্তগুলোর মধ্যে বঙ্গমাতার অনেক ভূমিকা ছিল: ডিসি কামরুল হাসান

বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে চাঁদপুরে বঙ্গমাতার জন্মদিন পালিত

চাঁদপুর :  বিভিন্ন কার্যক্রমের মধ্য দিয়ে চাঁদপুরে পালিত হয়েছে বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব এঁর ৯২ তম জন্মবার্ষিকী।

জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে সোমবার (০৮ আগস্ট) দুপুরে চাঁদপুর জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভা,   স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের মাঝে আর্থিক অনুদান এবং সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান।

জেলা প্রশাসক সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে জাতির পিতা ও বঙ্গমাতাসহ সকল শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করে বলেন, আমরা সবাই জেনেছি এ দিবসটি এই প্রথমবার সারাদেশে উদযাপিত হচ্ছে এবং দিবসটিকে ‘ক’ শ্রেনীর দিবস ঘোষণা করা হয়েছে। তাঁর ৩৭ বছরের দাম্পত্য জিবনে ১৪বছরই একা কাটিয়েছেন। বাকী ২৩ বছর তিনি বঙ্গবন্ধুর সাহচর্য ছিলেন। উনার জিবন, দর্শন, আদর্শ, ত্যাগ, কীর্তি এ সম্পর্কে বিস্তারিত আজকে আমরা জেনেছি। ১৯৭৫ থেকে ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত দেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ বা মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নিয়ে কোন আলোচনা ছিলো না। এ আলোচনা না থাকার কারণে আমাদের নতুন প্রজন্ম অনেক কিছুই জানা থেকে দূরে রয়েছিলো। দেশের জন্যে অনেক বড় ক্ষতি হয়ে গিয়েছিলো।

জেলা প্রশাসক বলেন, সভায় বক্তারা বলেছেন চাঁদপুরের বীরাঙ্গনা ছিরো ৪ জন। তাঁদেরকে ঢাকায় নিয়ে বিয়ে দেয়া বা তাঁদের যত্ন সহকারে আশ্রয় দেয়া এগুলো আমরা জানতাম না। আসলে এগুলো নিয়ে আলোচনার দরকার আছে। অনেক বড় বড় সিদ্ধান্তগুলোর মধ্যে বঙ্গমাতার অনেক বড় ভূমিকা রয়েছিলো। এসব আলোচনা সামনে আসা দরকার এবং নতুন প্রজন্মকে জানানো দরকার। তাঁর কীর্তি সম্পর্কে যেনে আমাদের সমাজের নারীরা অনুসরণ করে জাতীয় জিবনে বিশেষ ভূমিকা রাখবে।

মহিলা ও শিশু বিষয়ক অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক নাছিমা আক্তারের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, জেলা পুলিশ সুপার মো. মিলন মাহমুদ বিপিএম (বার), জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, পৌর মেয়র মো. জিল্লুর রহমান, পুরান বাজার ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ রতন কুমার মজুমদার, স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত নারী মুক্তিযোদ্ধা ডা. বদরুন্নাহার চৌধুরী, জাতীয় মহিলা সংস্থা চাঁদপুর জেলার চেয়ারম্যান অধ্যাপিকা মাসুদা নুর খান প্রমূখ।

আলোচনা সভা শেষে ৬০ জন অসহায় নারীকে সেলাই মেশিন এবং ৩৭ টি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনকে ১১ লাক ৪০হাজার টাকার অনুদানের চেক বিতরণ করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথিসহ আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ।

ফম/এমএমএ/

শাহরিয়া পলাশ | ফোকাস মোহনা.কম