বিস্মৃত মহাকাব্য

যুবক অনার্য
কয়েক পশলা হেঁটে দখিনা সড়কটি
বাঁক নিয়েছে অদৃশ্য আড়ঙের দিকে,
 অগত্যা রওনা হলাম সমুদ্র-লোকাচারে।
সামুদ্রিক শুঁড়িখানায় আমার বিকল্প
নেই বোলে তোমার সঙ্গে খেলতে চেয়েছি প্রথাহীন লুকোচুরি
ভেবো না যে তোমার বিকল্প
ছিলো না কেউ
তবু তোমাকেই কেনো যে…জানি না।-
এইসব কথাকাহিনি এবং দৃশ্যকাব্য
নেপথ্য দুপুরের স্মৃতিময় রোদ
হতে পারতো
কেননা বিষাদেরও থাকে
নিজস্ব গোপন সুখ।
গৃহহীন আলো হাওয়া ছড়িয়ে আছে
 সন্ধ্যার ঘুলঘুলি ও রাতের শার্সিতে।
বিস্মৃত মহাকাব্যের শব্দহীন পাতাগুলো আঙুলে মৃদুমন্দ
থু-থু মেখে
এলোমেলো উল্টে যাই
নিছক অভ্যাস বশে।

ফোকাস মোহনা.কম