বাবার চিকিৎসায় মানবিক সহায়তার আবেদন মেয়ের

পরীক্ষা শেষে মেয়েকে নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে সড়ক দূর্ঘটনায় গুরুতর আহত বাবা

কচুয়া (চাঁদপুর): কচুয়ায় এসএসসি পরীক্ষার শেষ দিনে মেয়ের পরীক্ষা শেষে বাড়ি ফেরার পথে সড়ক দূর্ঘটনায় গুরুতর আহত হন বাবা প্রদীপ চন্দ্র শীল। এতে তার বাম হাত ও বাম পা ভেঙ্গে যায়। পা কিছুটা ঠিক হলেও এখন দুঃশ্চিন্তা শুধু হাতটি নিয়ে। হাত করতে হয় অপারেশন, লাগে মোটা অংকের টাকা। চিকিৎসার টাকা জোগাতে ব্যর্থ তার অসহায় পরিবার। প্রদীপ চন্দ্র শীল উপজেলার ডুমুরিয়া পূর্ব শীল বাড়ির বাসিন্দা।

জানা যায়, প্রদীপ চন্দ্র শীলের মেয়ে অর্পিতা রাণী শীল দরবেশগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এবারের এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছিল। গত ২৩ শে নভেম্বর মেয়ে অর্পিতা রাণী শীলের পৌরনীতি পরীক্ষা শেষে গুলবাহার আশেক আলী খান উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ কেন্দ্র থেকে বাড়ি ফেরার পথে দেবীপুর নামক স্থানে অটোরিক্সা উল্টে গিয়ে প্রদীপ চন্দ্র শীল গুরুতর আহত হয়। এতে তার বাম হাত ও বাম পা ভেঙ্গে যায়। পরে তাকে উদ্ধার করে কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে প্রথমে চাঁদপুর পরে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

চিকিৎসকরা তাকে দেখাশোনা করে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করে বলেন, তার পা দ্রুত ঠিক হয়ে যাবে। তবে হাতকে যদি অতিদ্রুত অপারেশন করা না হয় তাহলে তার হাতটি অকেজো হয়ে যাবে। অপারেশনে লাগবে মোটা অংকের টাকা। চিকিৎসার টাকা জোগাতে ব্যর্থ তার অসহায় পরিবার। এতে চরম দুঃশ্চিন্তায় ভূগছেন তার স্ত্রী লিপি রাণী শীল ও মেয়ে অর্পিতা রাণী শীল। বাবার চিকিৎসার জন্য টাকা জোগাতে এখন মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন অসহায় মেয়েটি। সমাজের বিত্তবান লোকদের প্রতি মানবিক সহায়তার আবেদন করেছেন এসএসসি পরীক্ষার্থী অর্পিতা রাণী শীল।

ফম/এমএমএ/

ইসমাইল হোসেন বিপ্লব | ফোকাস মোহনা.কম