‘বছরের প্রথম দিন বিনামূল্যে বই বিতরণ বিশ্বে অনন্য’

চাঁদপুর: চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) কামরুল হাসান বলেছেন, বছরের প্রথম দিন তিন কোটি ৮১লাখ শিক্ষার্থীর মাঝে নতুন বই বিতরণ বিশ্বে এটি অনন্য উদাহরণ। বিশ্বের কোন দেশেই বিনামূল্যে এভাবে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের বই দেয়া হয় না। কিন্তু আমাদের দেশে উৎসবের মাধ্যমে ৩০ কোটি বই পাবে শিক্ষার্থীরা। আর এটি সম্ভব হয়েছে আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঐকান্তিক প্রচেষ্টার কারণে। যে কারণে আমরা তার প্রতি কৃতজ্ঞ প্রকাশ করছি।

সোমবার (১ জানুয়ারি) দুপুরে চাঁদপুর শহরের বাবুরহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের আয়োজনে বই বিতরণ উৎসব অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, নতুন বইয়ের ঘ্রান নেয়া এটির আনন্দ খুবই ভিন্ন। আমরা ছোট বেলায় এই আনন্দ পেয়েছি। কিন্তু একটা সময় বই কিনে পড়তে হয়েছে। বর্তমান সরকার এসে বিনামূল্যে বই বিতরণসহ শিক্ষার উন্নয়নে অনেক উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। ৮০ দশকে নতুন বই দেয়া হত মার্চ-এপ্রিল মাসে। তখন কবে বই দেয়া হবে আমরা খোঁজ রাখতাম। বইগুলো খুবই যত্নসহকারে বিদ্যালয় থেকে বাড়িতে নিয়ে যেতাম।

ডিসি বলেন, বছরের প্রথম আমাদের দেশ ও বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন ভাবে উদযাপন হয়। কিন্তু আমাদের দেশে ইংরেজী নববর্ষের প্রথম দিন বই বিতরণ উৎসবে নতুন আনন্দ যোগ হয়েছে। আমাদের জেলায় মাধ্যমিক পর্যায়ে সাড়ে ২২লাখ এবং প্রাথমিক পর্যায়ে ১২লাখ ৩৬ হাজার বই আজকে দেয়া হবে এবং সারাদেশে আজকে ৩০ কোটি বই দেয়া হচ্ছে বিনামূল্যে। আমরা যখন মাধ্যমিক স্তরে পড়েছে, তখন আমাদের সব বই কিনে পড়তে হয়েছে।

কামরুল হাসান বলেন, আমাদের সরকারের উদ্যোগ আগামী ২০৪১ সালে স্মার্ট বাংলাদেশ হবে। তাই অভিভাবকদেরকে বলছি, আপনারা আপনাদের সন্তানদের সু-শিক্ষায় শিক্ষিত করে স্মার্ট বাংলাদেশের স্মার্ট নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলবেন। আপনার সন্তানকে স্মার্ট নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে স্মার্ট ফোন থেকে দুরে রাখবেন। স্কুলে এসে তাদের পড়ালেখার খোঁজ খবর নিবেন। একই সাথে প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে মা সমাবেশ করবেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন চাঁদপুর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ফাতেমা মেহের ইয়াসমিন। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন-চাঁদপুরের পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মোস্তাফিজুর রহমান, চাঁদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাখওয়াত জামিল সৈকত ও বাবুরহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. মোশারফ হোসেন।

চাঁদপুর সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. হেদায়েত উল্লাহ, চাঁদপুর পৌরসভার কাউন্সিলর খায়রুল ইসলাম নয়ন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তপন কুমার রায়সহ জেলার বিভিন্ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা উপস্থিত ছিলেন।

সঞ্চালনায় ছিলেন বাবুরহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. দেলোয়ার হোসেন। সবশেষে প্রাক প্রাথমিক থেকে পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলেদেন প্রধান অতিথিসহ অন্যান্য অতিথিরা।

ফম/এমএমএ/

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | ফোকাস মোহনা.কম