পরীক্ষার দায়িত্ব থেকে অব্যহতির পর এবার শাহরাস্তির শিক্ষা কর্মকর্তা বদলি

মোঃ আহসান উল্যাহ চৌধুরী। ছবি: সংগ্রহীত।

চাঁদপুর: চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে কারিগরি বোর্ডের অধীনে এইচএসসি (বিএম) পরীক্ষায় প্রশ্নপত্রের সেট পরিবর্তনের ঘটনায় উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাসহ ৩ কর্মকর্তাকে পরীক্ষার দায়িত্ব থেকে অব্যহতির পর এবার মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে নোয়াখালি জেলায় চাটখিল উপজেলায় বদলি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১০ নভেম্বর) দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ হুমায়ুন রশিদ এ সংবাদের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে গত ৭ নভেম্বর এ ঘটনায় উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ আহসান উল্যাহ চৌধুরী, চিতোষী ডিগ্রি কলেজ কেন্দ্রের ট্যাগ কর্মকর্তার দায়িত্বে থাকা উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা মোঃ আবু ইসহাক ও চিতোষী ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ কামরুন নাহারকে পরীক্ষার দায়িত্ব থেকে অব্যহতি দেয়া হয়েছে।

ঘটনার বিবরণে জানাগেছে, গত রোববার (৬ নভেম্বর) বেলা ১১টায় উপজেলার চিতোষী ডিগ্রি কলেজের কেন্দ্র চিতোষী আর এন্ড এম উচ্চ বিদ্যালয়ে কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এইচএসসি (বিএম) বাংলা ২য় পত্র পরীক্ষায় নির্দেশনা মোতাবেক ‘ক’ সেটের প্রশ্ন দিয়ে পরীক্ষা শুরুর নির্দেশ থাকলেও কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরুন নাহার ‘খ’ সেট দিয়ে পরীক্ষার কার্যক্রম সম্পন্ন করেন। এক পর্যায়ে প্রশ্নের অসংগতি দেখে কেন্দ্রের ট্যাগ কর্মকর্তা মোঃ আবু ইসহাক বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করেন। খবর পেয়ে তিনি ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। ততক্ষণে পরীক্ষা শেষ হয়ে যায়। ভুল প্রশ্নের খবর চাউর হতেই শিক্ষার্থীরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে। ওই সময় তিনি পরিক্ষার্থীদের বুঝিয়ে বাড়িতে পাঠান।
খবর পেয়ে বিষয়টি তদন্তে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) বশির আহমেদ ঘটনাস্থলে আসেন এবং পরিক্ষা সংশ্লিষ্ট সকলের বক্তব্য নেন।

ওই দিনই তিনি জেলা প্রশাসকের কাছে এ বিষয়ে বিষদ তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন।

এ বিষয়ে শাহরাস্তি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ হুমায়ন রশিদ জানান, প্রশ্নের সেট পরিবর্তনের ঘটনায় ইতোপূর্বে ৩ কর্মকর্তাকে পরীক্ষার কার্যক্রম থেকে অব্যহতি দেয়া হয়েছে। তবে মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার বদলির বিষয়টি এ ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত কিনা তা তাৎক্ষণিকভাবে নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

চাঁদপুর জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মোঃ জাহাঙ্গীর আলম  বলেন, প্রশাসনিক কারণে তাকে বদলি করা হয়েছে। সেখানে প্রশ্নপত্র বিষয়ে কিছু উল্লেখ করা হয়নি। আমি এই বিষয়ে অতিরিক্ত কিছু বলতে পারব না।

ফম/এমএমএ/

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | ফোকাস মোহনা.কম