ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণে আ’লীগের নেতৃত্বে আসছেন কারা

ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে শনিবার (৩০ নভেম্বর)। এদিন বেলা ১১টায় ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন এবং প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সম্মেলনের উদ্বোধনী অধিবেশন শেষে বিকেল ৩টায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হবে কাউন্সিল অধিবেশন। এই কাউন্সিল অধিবেশনে দুই মহানগরের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করা হবে।  

 

সম্মেলনে কারা হচ্ছেন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এটি নিয়ে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ মহানগর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা। অতীতে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলনের পর কমিটি ঘোষণা দিতে দীর্ঘ সময় পার হয়েছে। বর্তমান কমিটি সম্মেলনের প্রায় ৩ বছর পর ঘোষণা করা হয়েছিলো। তবে এবারের কমিটি বিশেষ করে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম কাউন্সিলেই ঘোষণা করা হবে বলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন।

এর আগে ২০১২ সালের ২৭ ডিসেম্বর অবিভক্ত ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সর্বশেষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এর তিন বছর পর নগর আওয়ামী লীগকে উত্তর ও দক্ষিণ এই দু’ভাগে বিভক্ত করে ২০১৬ সালের ১০ এপ্রিল দুই মহানগরের দুইটি কমিটি দেওয়া হয়।

এবারের সম্মেলনের মাধ্যমে উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতৃত্বে আমূল পরিবর্তন আনার কথা শোনা যাচ্ছে। নতুন কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে ত্যাগী ও দক্ষ এবং বিতর্কমুক্ত, স্বচ্ছ ও পরিচ্ছন্ন ইমেজের নেতাদেরই প্রাধান্য দেওয়া হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে বর্তমান সভাপতি এ কে এম রহমতুল্লাহ এমপি ছাড়াও অবিভক্ত ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার, উত্তরের বর্তমান সহ-সভাপতি শেখ বজলুর রহমান, আজিজুর রহমান বাচ্চু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এম এ কাদের খান প্রমুখের নাম আলোচনায় রয়েছে। সাধারণ সম্পাদক পদে সাদেক খান এমপি বহাল থাকার চেষ্টা করছেন। এছাড়া উত্তরের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এস এম মান্নান কচির নাম জোর আলোচনায় রয়েছে, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাবিব হাসান এবং দপ্তর সম্পাদক এম সাইফুল্লাহ সাইফুল সাধারণ সম্পাদক পদে আসার চেষ্টা করছেন।

দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে বর্তমান সভাপতি হাজি আবুল হাসনাত ছাড়াও আলোচনায় রয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ও অবিভক্ত ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ হানিফের ছেলে মোহাম্মদ সাঈদ খোকন, অবিভক্ত ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য আইনজীবী নেতা অ্যাডভোকেট কাজী নজিবুল্লাহ হিরু, নগর দক্ষিণের বর্তমান সহ-সভাপতি ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৩৮ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মুক্তিযোদ্ধা আবু আহমেদ মন্নাফী, কে. এল. জুবিলী স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ সমরেন্দ্র নাথ রায় সমর।

সাধারণ সম্পাদক পদে বর্তমান সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ এবারও পদে থাকতে আগ্রহী। এছাড়া সাধারণ সম্পাদক পদপ্রত্যাশী হিসাবে তৎপর রয়েছেন বর্তমান কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. দিলীপ রায়, সাংগঠনিক সম্পাদক হেদায়েতুল ইসলাম স্বপন, গোলাম আশরাফ তালুকদার, অ্যাডভোকেট কাজী মোর্শেদ হোসেন কামাল, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মোহাম্মদ আকতার হোসেন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ও ২৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ওমর বিন আবদুল আজিজ তামিম। তিনি অবিভক্ত ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি প্রয়াত এমও আজিজের ছেলে। কার্যনির্বাহী সদস্য ও ৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর বি এম সিরাজুল ইসলাম, সূত্রাপুর থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গাজী আবু সাঈদ, গোলাম সারোয়ার কবিরের নাম সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনায় রয়েছে।

ফম/এমএমএ/

নিউজ ডেস্ক | ফোকাস মোহনা.কম