ঢাকায় চাকরী করে ন্যশনাল সার্ভিসের টাকা তুলছেন রায়শ্রী আওয়ামী লীগ নেতার ছেলে

শাহরাস্তি: ঢাকায় চাকরী করে এলাকার স্কুল থেকে ন্যাশনাল সার্ভিসের টাকা তুলে নিচ্ছেন রায়শ্রী দক্ষিণ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক ডাঃ আঃ রাজ্জাকের ছেলে। সরকার ঘোষিত বেকার যুবক যুবতিদের কর্মসংস্থানের জন্য দুই বছর মেয়াদে চালু করা হয় ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচী। কর্মসূচী চালুরপর থেকে সরকারী ব্যবস্থাপনায় তাদের প্রশিক্ষনের ব্যাবস্থা করা হয়। এরপর সরকারী বিভিন্ন দপ্তরে তাদের নিয়োগ দেয়া হয়। শাহরাস্তিতে বর্তমানে কয়েকশ’ যুবক যুবতী এ কর্মসূচীর আওতায় কাজ করে যাচ্ছে। এ কর্মসূচীর এক জন সদস্য রায়শ্রী দক্ষিণ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ডাঃ আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে রবিউল আউয়াল জয়। তিনি ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচীর আওতায় খিলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যোগদান করেন।

ওই বিদ্যালয়ে শিক্ষক সংকটের কারণে তাকেসহ মোট ৩ জনকে সেখানে সংযুক্ত করা হয়। বিদ্যালয়ে যোগদান করার পর সপ্তাহখানেক পাঠদান কর্মে অংশ নেয়ার পর তিনি আর বিদ্যালয়ে আসেন নি।

বিদ্যালয়ের পাশের দোকানদার মোঃ গিয়াস উদ্দিন জানান, রবিউল আউয়াল জয় এই বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করতে কখনো দেখিনি। তার বাবা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সেক্রেটারি ও ভগ্নিপতি মোহাম্মদ উল্যাহ স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হবার সুবাদে সে অবৈধভাবে এ ভাতা গ্রহণ করছে।

খিলা গ্রামের কৃষক মোঃ মানিক ও খোরশেদ আলম জানান, রবিউল আউয়াল জয় ঢাকায় হ্যামস গ্রুপে বড় পদে চাকরি করছে। সে কখনো বিদ্যালয়ে আসতে দেখি নি।

একই গ্রামের ব্যবসায়ী মোঃ ফারুক হোসেন জানান, বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ উল্যাহ ক্ষমতার অপব্যবহার করে তার শ্যালককে এই অনৈতিক সুবিধা দিচ্ছে।

বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক বিমল চন্দ্র পাল জানান, এই বিদ্যালয়ে রবিউল আউয়াল জয়, আসমা আক্তার ও রোমানা আক্তার এনএসপির সদস্য হিসেবে যোগদান করেন। এক সপ্তাহ পর হতে অদ্যাবধি রবিউল আউয়াল জয় পাঠদান কাজে অংশ নেন না।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফয়েজুন্নেছা জানান, রবিউল আউয়াল জয় বিদ্যালয়ে আসেন না। ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ উল্যাহর অনুরোধে ভাতার জন্য প্রত্যয়ন দিতে হয়। বিষয়টি অনৈতিক হওয়ায় আমি সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা খাজা মাঈনুদ্দিনকে অবহিত করেছি।

ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ উল্যাহ ঘটনা স্বীকার করে মুঠোফোনে জানান, যেহেতু অভিযোগ হয়েছে আমরা এটি বন্ধ করে দেব।
প্রসঙ্গত, খিলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২৩৬ জন শিক্ষার্থি রয়েছে। এখানে ৬ জন শিক্ষকের মধ্যে ১ জন ডিপিএড ট্রেনিং ও ১ জন মাতৃত্বকালীন ছুটিতে রয়েছেন।

ফম/এমএমএ/

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | ফোকাস মোহনা.কম