ডাকাতিয়া নদীর পানি দূষিত হচ্ছে, ক্ষতি হচ্ছে জীব বৈচিত্রের

চাঁদপুর: চাঁদপুর জেলা কারাগারের শতশত মানুষের ব্যবহারের বর্জ্য ও বিসিক শিল্পনগরী বাবুরহাট এলাকার প্রতিদিন শতাধিক কারখানার রাসায়নিক বর্জ্য জমা হয়ে ব্যাপক রাসায়নিক বর্জ্য ডাকাতিয়া নদীতে নির্গত হচ্ছে। আর সেই বর্জ্য ড্রেনের ও খালের মাধ্যমে নির্গত হচ্ছে ডাকাতিয়া নদীতে। এতে করে বর্জ্যে দূষিত হচ্ছে এ এলাকার ডাকাতিয়া নদীর পানি। এসব বর্জ্যরে গ্যাসে মরে যেতে দেখা যাচ্ছে দেশীয় প্রজাতির বিভিন্ন প্রকার মাছ এবং পরিবেশ মারাত্মভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। একই সাথে এলাকার হাজার-হাজার মানুষ বিভিন্নভাবে আক্তান্ত হয়ে পড়ছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, চাঁদপুর জেলা কারাগারের ভিতর থেকে আসা মোটা পাইপের মাধ্যমে ব্রীজের নীচদিয়ে এ বর্জ্য এসে পড়ে শাহতলী ও হামানকর্দ্দি গ্রামের পাশদিয়ে বয়ে যাওয়া ডাকাতীয়া নদীর সংযোগস্থলের খালে। এ খাল দিয়ে এ রাসায়নিক বর্জ্য প্রবেশ করে ডাকাতিয়া নদীতে। জেলা কারাগার কর্তৃপক্ষ পরিবেশের দিকে নজর না দিয়ে ও পরিবেশের কথা চিন্তা না করে অনায়াসে নিত্যদিনই খালের মাধ্যমে ডাকাতীয়া নদীতে বর্জ্য নির্গত করে যাচ্ছে। এ কারনে এখাকার একমাত্র নদীর পানি দূষিত হচ্ছে এবং গ্রাম বাংলার বিভিন্ন প্রজাতির মৎস্য সম্পদ ধ্বংসের দিকে ধাবিত হচ্ছে। প্রতিদিন নদীর পানি দূষনের ফলে মারা যাচ্ছে নানা প্রজাতির প্রচরি পরিমানে দেশীয় মাছ।

অপরদিকে একইভাবে বাবুরহাট বিসিক শিল্পনগরীর বিভিন্ন রাসায়নিক বর্জ্য পদার্থ খালে প্রব্শে করে গড়িয়ে পড়ে ডাকাতীয়া নদীতেই নির্গত হচ্ছে। বাবুরহাট বিসিক কর্তৃপক্ষ এ এলাকার পরিবেশের বিষয়টি তোয়াক্কা না করে খালের মাধ্যমে বর্জ্য নদীতে ফেলেই যাচ্ছে দেদারছে।

প্রতিনিয়ত এসব ময়লা-বর্জ্যে ও রাসায়নিক পদার্থ পড়ে দূষিত হচ্ছে শাহতলী ও হামানকর্দ্দি গ্রামে পাশে দিয়ে বয়ে যাওয়া ডাকাতীয়া নদীর পানি। জেলা কারাগার ও বাবুরহাট বিসিক শিল্পনগরীর কর্তৃপক্ষ যেন নদীতে ময়লা আবর্জনা ফেলে চিন্তামুক্তভাবে স্বস্তির নিশ্বাস ফেলতে দেখা যাচ্ছে। এ ভয়াবহ বিষয়টি যেন দেখার কেউনেই।

কারাগারের এসব ময়লা-আবর্জনায় রয়েছে পরিবেশের মারাত্মক ক্ষতিকারক পলিথিন জাতীয় অপচনশীল দ্রব্য, যা শত বছরেও নষ্ট হবে না। কারাগারের কয়েদীদের নিত্যদিন ব্যবহারের বর্জ্যসহ বিভিন্ন বর্জ্য রয়েছে।

অনুরুপভাবে বাবুরহাট বিসিক শিল্পনগরীর বর্জ্যের মধ্যে রয়েছে রাসায়নিক ও কেমিক্যাল জাতীয় পর্দাথ ও শ্রমিকদের ব্যবহার করা বর্জ্যসহ বিভিন্ন ধরনের বর্জ্য ক্ষতিকারক পদার্থ রয়েছে।

এ বিষয়ে এলাকাবাসীর অভিযোগ করে এ প্রতিনিধিকে জানান, আমরা আগে এ খালের পানি রান্না, গোসল করাসহ দৈনন্দিন বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করেছি। কিন্তু বর্তমানে এ খাল দিয়ে চাঁদপুর জেলা কারাগার ও বাবুরহাট বিসিক শিল্পনগরীর রাসায়নিক বর্জ্য ও ক্ষতিকারক পদার্থ ডাকাতীয়া নদীতে প্রতিদিন নির্গত হচ্ছে। এতে নদীর পানি মারাত্বক ভাবে দূষিত ও বিষাক্ত হয়ে পড়ছে। মারা যাচ্ছে বিভিন্ন প্রকার মাছসহ বিভিন্ন মৎস্য শ্রেনিভুক্ত বিভিন্ন জলজ প্রানী। জনগন নদীর পানি ব্যবহার করে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়ছে। তাই আমরা এ ডাকাতীয়া নদীর পানি দূষনমুক্ত করতে ও রক্ষা কল্পে চাঁদপুর পরিবেশ বিভাগ, জেলা প্রশাসক ও পরিবেশ অধিদপ্তরের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন এ এলাকার ভুক্তভোগী মহল।

এ বিষয়ে চাঁদপুর পরিবেশ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালকের সাথে মোবাইল ফোন যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, এ ধরনের কোন বিষয় আমার জানা নেই। আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে এ বিষয়টি অবগত হয়ে ব্যবস্থা গ্রহন করবো।
ফম/এমএমএ/

মো. শওকত আলী | ফোকাস মোহনা.কম