চেতনা-৭১ মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিসৌধ নির্মাণের লক্ষ্যে আলোচনা সভা

মতলব উত্তর (চাঁদপুর): বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক চেয়ারম্যান ও বৃহত্তর মতলব থানার যুদ্ধকালীন এফ এফ কমান্ডার কবির আহমেদ খান বলেন, স্বাধীন দেশের জন্য আত্মোৎসর্গকারী শহীদদের বাংলাদেশ কখনো ভুলতে পারবে না। ভুলতে পারবে না একাত্তরে পাকিস্তানি হানাদার আর তাদের এদেশীয় দোসরদের পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ডের শিকার শহীদ বুদ্ধিজীবীদের। কিন্তু সময় এমন এক ঘাতক, যা নীরবে অনেক কিছুই কেড়ে নিতে পারে, কেড়ে নেয়।

বুধবার (১৬ নভেম্বর) বিকেলে মতলব উত্তর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে চেতনা-৭১ মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিসৌধ নির্মাণের লক্ষ্যে, মুক্তিযোদ্ধাও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী নতুন প্রজন্মের সমন্বয়ে আলোচনা সভায় তিনি কথা বলেন।

কবির আহমেদ খান আরও বলেন, কালের পরিক্রমায় সমাজ ও রাজনীতির নানা পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে জাতির অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ইতিহাসের অনেক স্মারক হারিয়ে যেতে পারে। তেমনি পরিকল্পিতভাবে মুছে ফেলা হতে পারে জাতীয় ইতিহাসের অনেক অধ্যায়, অনেক স্মারক।

বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কেন্দ্রীয় কমান্ডারের সাবেক চেয়ারম্যান কবির আহমেদ খান বলেন, ইতিহাস স্বাক্ষ্য দিচ্ছে, নানা দেশের মতো বাংলাদেশও এই নির্মম বাস্তবতার মধ্য দিয়ে পার হয়েছে। বাংলাদেশ আবার ঘুরেও দাঁড়িয়েছে। কিন্তু মুক্তিযুদ্ধে হারানো মানুষদের, শহীদদের অনেক স্মৃতিই রক্ষা করা যায়নি। রক্ষা করা যায়নি শহীদ বুদ্ধিজীবীদের অনেক স্মৃতিও। আগামী প্রজন্মের জন্য মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি সংরক্ষণ করে আগামী দিনের জন্য স্মৃতিসৌধ নির্মাণ করা সময়ের দাবি হয়ে দাড়িয়েছে।

সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কেন্দ্রীয় কমান্ডারের সাবেক চেয়ারম্যান ও বৃহত্তর মতলব থানার যুদ্ধকালীন এফ এফ কমান্ডার কবির আহমেদ খান।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ পুলিশের সাবেক ডিআইজি মো. সফিকুর রহমান, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মিয়া মো. জাহাঙ্গীর আলম, বীর মুক্তিযোদ্ধা হাছান ইমাম চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোজাম্মেল হক খান (টগর), বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল হক সরকার, বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম লস্কর, বীর মুক্তিযোদ্ধা মজিবুর রহমান’সহ অন্যান্য।

স্মৃতিসৌধ বাস্তবায়ন কমিটি গঠনকল্পে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

ফম/এমএমএ/

আরাফাত আল-আমিন | ফোকাস মোহনা.কম