চাঁদপুর জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডারের পাল্টা সংবাদ সম্মেলন

চাঁদপুর: কতিপয় দুষ্কৃতিকারী, সমাজ বিরোধী, সরকারি অর্থ তসরুফকারী, সন্ত্রাসি, খুনের দায়ে অভিযুক্ত স্বার্থ লোভীবর্গের সাংবাদিক সম্মেলনের প্রতিবাদে পাল্টা সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন চাঁদপুর জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ।

রোববার (২৪ নভেম্বর) দুপুর ১২টায় জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের হলরুমে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ ওয়াদুদ।

তিনি তার বক্তব্য বলেন, আমি কোন নোংরামিতে অভ্যস্ত নই, এর শিকারও হয়নি। আমাদের যা সম্পদ আছে, তা পৈত্রিক সম্পত্তি। অবৈধ ভাবে দখলের কোন সম্পত্তি নেই। আমরা আমাদের বৈধ সম্পদের খাজনা দিয়ে থাকি। আমি এই সংসদের নির্বাচিত মুক্তিযুদ্ধা। যারা আমার বিরুদ্ধে সংসদের বিষয়ে কথা বলেছে, তারা গঠনতন্ত্রকে অবমূল্যায়ন করেছে। গঠনতন্ত্রের ২৮ এর ‘ক’ ধারায় সংসদ ভেঙে দেওয়া পর পরিবর্তে দায়িত্ব পালন পালন করা যায়। আমি কোন গায়ের জোরে কথা বলছি না, আমি কোনভাবেই অবৈধ শক্তি প্রয়োগ করছি না। এ ভবনের ১১ টি দোকান ১৪শ ৫০ টাকা করে মোট টাকা দোকানদারই ব্যাংকে জমা দেন। তাহলে আমি কিভাবে টাকা আত্মসাৎ করলাম।

তিনি আরো বলেন, আমার বিরুদ্ধে পান্না যে অভিযোগ দিয়েছে তার কোন হদিস নাই। আমার বিরুদ্ধে আনিত সকল মামলা ভিত্তিহীন ও ভুয়া। আমি খুব শীঘ্রই এসব বিষয়ের উপর আইনী প্রক্রিয়ায় যাবো এবং যে সাংবাদিক সম্মেলন করছি তাও একটি আইনি প্রক্রিয়ার মধ্যে পড়ে।

মতলব উত্তরের মায়ারানীর সম্পদক দখলেরর বিষয়ে বক্তব্য রাখেন দুর্গাপুর গ্রামের রমেশ ও কালীপদ মজুমদার।

চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক লক্ষ্মন চন্দ্র সূত্রধরের সভাপতিত্বে সাংবাদিক সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ইকরাম চৌধুরী, শরীফ চৌধুরী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক রহিম বাদশা, সোহেল রুশদী, মির্জা জাকির, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আউয়াল রুবেল, সমাজকল্যান সম্পাদক মুনওয়ার কানন, আলম পলাশ ও শাহাদাত হোসেন শান্ত প্রমুখ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার আব্দুল হাফিজ খান, সহকারী কমান্ডার ইয়াকুব আলী মাস্টার, ফরিদগঞ্জ উপজেলা কমান্ডার আবুল খায়ের পাটওয়ারীসহ গণমাধ্যমের বিভিন্ন পর্যায়ের সাংবাদিকবৃন্দ।
ফম/এমএমএ/

শাহ আলম খান | ফোকাস মোহনা.কম