চাঁদপুর খানকায়ে দরবার শরীফের জশনে জুলুছ ও ওয়াজ মাহফিল

চাঁদপুর: চাঁদপুরের ইচলী খানকায়ে চিশতীয়া রাহমানিয়া দরবার শরীফের আয়োজনে ঈদে মিলাদুন্নবী (স.) উপলক্ষে জসনে জুলুশ  বের করা  হয়েছে।
রোববার (৯ অক্টোবর)  সকালে বাগাদী রোডের হযরত মোশারফ হোসেন চিশতী (রা.) মশু বাবার দরবার শরীফ থেকে শত শত ভক্ত,  মুরিদ ও মুসল্লিদের অংশ গ্রহনে জুলুশটি বের করা  হয়।
পুরো শহর প্রদক্ষিণ করে পুনঃ রায় হযরত মোশারফ হোসেন চিশতী (রা.) মশু বাবার দরবার শরীফে গিয়ে শেষ হয়।    শিশু-কিশোরসহ সব বয়সীদের হাতে ছিল বিভিন্ন রঙয়ের পতাকা ব্যানার ও জাতীয় পতাকায় শোভিত ও মাথায় হলুদ কাপড়ের পাগরীতে সজ্জিত ছিলেন জুলুশে অংশগ্রহণকারীরা। আর তাদের কণ্ঠে ছিল নবীজীর নাম ও ঈদে মিলাদুন্নবী উপলক্ষে সবার প্রতি শুভেচ্ছার শ্লোগান।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন মোঃ আব্দুল হান্নান চিশতী, মশু চিশতীর জামাতা মোঃ  ইউসুফ পাটওয়ারী রিপন, , জামাতা অ্যাডঃ  হাসান উল্লাহ পাটওয়ারী, ছাত্তার চিশতী, কাশিম চিশতী, মাও. মিজানুর রহমান চিশতী,মাওঃমোহাম্মদ আলী আল কাদেরী, মাওঃ মোঃ  আলী আরশাদ আল কাদেরী, সামু চিশতী, মাহফুজুর রহমান টুটুল চিশতী, মাও. জামাল পাটওয়ারী, রফিকুল ইসলাম চিশতী,   স্বপন পাটওয়ারী, গিয়াস উদ্দিন ভোলা, মনির হোসেন মান্না চিশতী, লোকমান চিশতী, হাবু চিশতী, ডা. গিয়াস উদ্দিন স্বপন, ইব্রাহিম চিশতী, রতন গাজীসহ অসংখ্য মুরিদ।
উল্লেখ্য, প্রায় ১ হাজার ৪শ’ বছর আগে আরবের মরু প্রান্তরে মা আমেনার কোল আলো করে জন্ম নিয়েছিলেন বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ (স)। একই দিনে তিনি পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করেছিলেন। তিনি পৃথিবীতে এসে শান্তির ধর্ম ইসলাম প্রচার করেছেন। তার আভির্ভাব ও ইসলামের শান্তির বাণী প্রচার সারা বিশ্বে আলোড়ন সৃষ্টি করেন। তার জন্ম ও উফাত দিবস ১২ রবিউল আউয়াল মুসলমানদের কাছে এক পবিত্র দিন। মুসলিম সম্প্রদায় এই দিনটিকে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী হিসেবে পালন করে থাকেন।
ফম/এমএমএ/

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | ফোকাস মোহনা.কম