চাঁদপুরে ৪দিনব্যাপী আয়কর মেলা শুরু

চাঁদপুর: ‘জনকল্যাণে রাজস্ব’ ‘সুখি স্বদেশ গড়তে ভাই, আয় করের বিকল্প নাই’ এ স্লোগানে চাঁদপুরে ৪দিনব্যাপী আয়কর মেলা শুরু হয়েছে।

শনিবার (১৬ নভেম্বর) বিকেলে ফিতাকেটে মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র ও চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কর অঞ্চল কুমিল্লার কর কমিশনার এম এম ফজলুল হক, চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, স্বাধীনতা পদক প্রাপ্ত নারী মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ সৈয়দা বদরুন্নাহার চৌধুরী।
সভাপতিত্ব করেন কর অঞ্চল চাঁদপুরের সহকারী কর কমিশনার মো. আলাউদ্দিন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন কুমিল্লা কর অঞ্চলের সহকারী কর কমিশনার মো. শাখাওয়াত হোসন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে নাছির উদ্দিন আহমেদ বলেন, কর মেলার আয়োজনের ব্যনারে বঙ্গবন্ধর ছবি নেই। এটি একটি অমার্জনীয় অপরাধ। বিষয়টি আমি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানাব। আপনারা কার উচিলায় রাষ্ট্রের বড় বড় অবস্থানে আছেন, তাকেই ভুলে যাচ্ছেন। যারা বঙ্গবন্ধুর খুনি তাদের সাথে জাতির জনকের কন্যার নেতৃত্বাধীন সরকারকে মিলাচ্ছেন। খালেদা জিয়া রাজাকারদের গাড়ীতে জাতীয় পতাকা দিয়েছেন। কর কমিশনার এম এম ফজলুল হক খালেদা জিয়া, এরশাদ সরকারের সাথে এক করে বক্তব্য দেয়া সঠিক হয়নি। কারণ তারা দেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করেছেন, কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশকে উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করেছেন। বক্তব্য দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করা ঠিক না। নিজেকে বড় মনে করা ঠিক নয়। দেশের সেবামূলক কাজ যারা করেন, তারা কেউ বেশী করেন, কেউ কম করেন। এসব কথা ঢোল পিটিয়ে বলার প্রয়োজন হয় না।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কর কমিশনার এম এম ফজলুল হক বলেন, কুমিল্লা কর অঞ্চল নির্দিষ্ট লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। আমাদের কর্মকর্তাগণ আগের চাইতে অনেক নিয়ম তান্ত্রিক পদ্ধতিতে এসেছেন। যারা কর দেয়ার যোগ্য তাদেরকে আমরা বুঝিয়ে কর প্রদানে উৎসাহিত করতে অনেকটা সক্ষম হয়েছি। কর না দেয়া একটি বড় ধরণের অপরাধ। জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে কর মেলার মাধ্যমে রাজস্ব বহুগুন বৃদ্ধি করেছেন।

সঞ্চালনায় ছিলেন কর পরিদর্শক আব্দুল্লাহ আল মামুন ও উচ্চ মান সহকারী আব্দুর রহমান। অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে ফিতা কেটে মেলা উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথিসহ অন্যান্য অতিথিবৃন্দ। কুরআন তিলাওয়াত করেন হাফেজ মো. মোরশেদ আলম ও গীতা পাঠ করেন ব্রহ্মচারী স্বপন চৈতন্য।

উল্লেখ্য, মেলায় সোনালী ব্যাংক, জনতা ব্যাংক ও বেসিক ব্যাংকসহ কর অফিসের স্টলসহ প্রায় ১৫টি স্টল রয়েছে। আগামী ১৯ নভেম্বর মেলার সমাপ্তি হবে।

ফম/এমএমএ/

ফোকাস মোহনা.কম