চাঁদপুরে বীর মুক্তিযোদ্ধাকে ছুরিকাঘাতে হত্যা

ছবি: ফেসবুক থেকে সংগ্রহীত।

চাঁদপুর : চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরি কমিটির সদস্য ও শহীদ জাবেদ মুক্ত স্কাউট গ্রুপের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. রফিক উল্লাহ (৭০) কে শরীরের বিভিন্ন স্থানে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় শহরের নতুন বাজার সফিনা আবাসিক হোটেলের তৃতীয় তলায় একটি কক্ষে এই ঘটনা ঘটে। রফিক উল্লাহ ওই এলাকার বাসিন্দা মরহুম আলহাজ¦ মো. হেদায়েত উল্যাহর ছেলে এবং চাঁদপুরের প্রথম শহীদ জাবেদ এর ছোট ভাই। তিনি অবিবাহিত ছিলেন।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানায়, মাগরিবের নামাজের পরে বাসার কেয়ার টেকার মিরাজ রফিক উল্লাহকে খুঁজতে গিয়ে ওই কক্ষে প্রবেশ করেন। সেখানে গিয়ে দেখেন কে বা কারা ছুরিকাঘাত করে, একটি ছুরি শরীরে বিদ্ধমান ও রক্তাক্ত অবস্থায় রেখে গেছেন মুক্তযোদ্ধাকে। মিরাজের চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন ছুটে আসেন এবং ওই অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অর্থ) সুদীপ্ত রায় বলেন, আমরা ঘটনাস্থল ও হাসপাতালে গিয়ে মরদেহ দেখেছি। প্রাথমিকভাবে আমরা বুঝতে পেরেছি এটি ছুরিকাঘাতে হত্যা। আমাদের কর্মকর্তারা তদন্ত করছেন। বাড়ীর কেয়ার টেকার মিরাজকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। ঘটনার বিস্তারিত পরবর্তীতে আপনাদেরকে জানানো হবে।

এদিকে, এই বীর মুক্তিযোদ্ধার মর্মান্তিক মৃত্যুর সংবাদ জেনে হাসপাতালে দেখতে আসেন চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুদিপ্ত রায়, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আসিফ মহিউদ্দিন, পৌর মেয়র অ্যাডঃ জিল্লুর রহমান জুয়েল ও চাঁদপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ আব্দুর রশিদ।

হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাঃ সাগর মজুমদার বলেন, তার শরীরে বেশ কয়েকটি ধারালো ছুরির আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এমন কি একটি ছুরি তার বুকের বাম পাশে গেথে ছিল। হাসপাতালে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে।

চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব নাছির উদ্দীন আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল বলেন, বলার ভাষা নেই। তার সাথে কারো কোনো খারাপ সম্পর্ক ছিলনা। তবে যারা তাকে খুন করেছে তার কঠিন শাস্তির দাবী জানাই।
ফম/এমএমএ/

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | ফোকাস মোহনা.কম