চাঁদপুরে বিদেশী পেঁয়াজ আমদানি হলেও দাম কমছে না

চাঁদপুর: পেঁয়াজের মূল্য নিয়ে দেশজুড়ে আলোচনা ও সমালোচনা। ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ দেয়ার পর থেকেই আমাদের দেশে পেঁয়াজের সঙ্কট দেখা দেয়। সেই থেকে বাজার স্থিতিশীল রাখতে পারেনি ব্যবসায়ী সংগঠন ও সরকারি সংশ্লিষ্ট দপ্তর। শক্তিশালী সিন্ডিকেটের হাতে জিম্মি হয়ে পড়ে সাধারণ ক্রেতা। কয়েকদফা পেঁয়াজের দাম কমলেও আবারও যেই কদু, সেই লাউ। জেলা প্রশাসন বাজারে অভিযান, ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করলেও ব্যবসায়ীরা এতে তোয়াক্কা করছেন না। বিদেশ থেকে আমদানি করা পেঁয়াজ চাঁদপুরে আসলেও দাম কমাচ্ছে না ব্যবসায়ীরা।

বুধবার (২৭ নভেম্বর) চাঁদপুর শহরের পালবাজার, বিপনীবাগ বাজার, নতুন বাজার মুদি ব্যবসায়ীরা ভাল মানের পেঁয়াজ বিক্রি করেছেন প্রতিকেজি ১৮০-২০০টাকা। বিদেশ থেকে আমদানি পেঁয়াজ বিক্রি করেছেন ১৬০-১৮০টাকা কেজি। মহল্লার দোকানগুলোতে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ব্যবসায়ীদের ইচ্ছেমত।

মহল্লার একাধিক খুচরা বিক্রেতাদের সাথে আলাপ করলে তারা জানান, দেশীয় পেঁয়াজ পুরাণ বাজার আড়তে পাওয়া যায়নি। সিন্ডিকেটের কারণে গতকাল পুরাণ বাজার আড়ৎগুলোতে পেঁয়াজ পাওয়া যায়নি। ক্রেতাদের চাহিদায় বাধ্য হয়ে বিদেশ থেকে আমদানি পেয়াঁজ ১৬০টাকা করে পাইকারি করতে হয়েছে। পরিমানে কম এনেছেন।

শহরের বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দাদের সাথে আলাপ করলে তারা জানান, লবন গুজব ছড়ানোর পর প্রশাসন যেভাবে প্রদক্ষেপ নিয়েছে এবং নিয়ন্ত্রন করেছে তা প্রশংসনীয়। কিন্তু পেঁয়াজের ক্ষেত্রে প্রশাসনের ওই ধরণের প্রদক্ষেপ পরিলক্ষিত হয়নি। যার কারণে পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়নি। প্রশাসন, জনপ্রতিনিধি, বিভিন্ন পেশা শ্রেনীর লোকজন ঐক্যবদ্ধ হয়ে চেষ্টা করলে অবশ্যই পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণে আসবে।

ফম/এমএমএ/

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | ফোকাস মোহনা.কম