চাঁদপুরে চট্টগ্রাম বিভাগীয় কর্মকর্তার ভ্রাম্যমান আদালতে শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

১২ প্রতিষ্ঠানকে সর্তকমূলক স্বল্প পরিসরে জরিমানা

চাঁদপুর:  চাঁদপুরে চট্রগ্রাম বিভাগীয় ভূ-সম্পত্তি কর্মকর্তা বিশেষ ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা কালে চাঁদপুর শহরের বড়স্টেশন থেকে কোর্টস্টেশন পর্যন্ত রেলপথের পাশে অবৈধভাবে গড়ে উঠা শতাধিক ছোট-বড় স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। এ সময় নিজেদের উদ্যেগে গড়ে উঠা অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নিয়ে যাবে এমন শর্তে ১২ প্রতিষ্ঠানকে সর্তকমূলক স্বল্প পরিসরে জরিমানা করা হয়। এ সব অবৈধ ১২ প্রতিষ্ঠান থেকে রেলওয়ের চট্রগ্রাম বিভাগীয় ভূ-সম্পত্তি কর্মকর্তা ও এক্সক্লোসিভ ম্যাজিস্ট্র্যেট মো: মাহবুবুল করিম ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা কালে ৭ হাজার ৬শ’টাকা জরিমানা আদায় করেন।

বুধবার (২০ জুলাই) দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত শহরের বড় স্টেশন মোলহেড থেকে শুরু করে কোর্ট স্টেশন পর্যন্ত এ ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হয়। এ ধরণের ভ্রাম্যমান আদালত রেল বিভাগ নিয়মিত অভিযানের অংশ।

অভিযানে সার্বিক সহযোগিতা করেন সহকারী ভূ-সম্পত্তি কর্মকর্তা (এইও) শহীদুজ্জামান, চাঁদপুর স্টেশন মাষ্টার শোয়েবুল শিকদার, লাকসাম-চাঁদপুর ভূ-সম্পত্তির দায়িত্বরত কর্মকর্তা কানুনগো কাউছার হামিদ, জাকির হোসেন, এসআই (জিআরপি) তোফাজ্জল হোসেন, নিরাপত্তা ইনচার্জ (আরএনবি) মো. খোরশেদ আলম ও সঙ্গীয় ফোর্স।

অভিযানে বড় স্টেশন এলাকার ৮টি এবং কোর্ট স্টেশন এলাকার ৪টি অবৈধ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নিজ উদ্যোগে সরিয়ে নেয়ার শর্ত সাপেক্ষে তাদেরকে সতর্ক করে সাময়িকভাবে স্বল্প পরিসরে জরিমানা করা হয়। কোর্ট স্টেশন এলাকার অবৈধ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে ক্যাফে জামাকে ১ হাজার, ফল ব্যবসায়ী মুনাফ বেপারীকে ১ হাজার, সৈয়দ গাজী ওরফে লাদেনকে ১ হাজার, ফল ব্যবসায়ী মানিক বেপারীকে ৫শ’ ও দেলোয়ার হোসেন আখন্দকে ৫শ’ টাকা জরিমানা করা হয়।

এক্সক্লোসিভ ম্যাজিস্ট্র্যেট মো: মাহবুবুল করিম বলেন, চাঁদপুরে এই প্রথম বিশেষ ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিত হয়েছে। এখন থেকে নিয়মিত অভিযান অব্যাহত থাকবে। সতর্কতা না মানলে পরবর্তীতে বড় ধরণের জরিমানা ও আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এদিকে, ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার পর ম্যাজিস্ট্রেট ও রেল কর্মকর্তারা চলেগেলে ওইসব স্থানে আবারও ব্যবসায়ীরা অবৈধ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বসান। যার ফলে স্থানীয়দের মধ্যে এই বিষয়ে ক্ষোভ বিরাজ করে। কারণ রেল লাইনের পাশে এসব অবৈধ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থাকলে যাত্রীদেরকে ঝুঁকির মধ্যে থাকতে হয় এবং সড়ক পার হতে গিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হন।

ফম/এমএমএ/

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | ফোকাস মোহনা.কম