চাঁদপুরের ৬ উপজেলার গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কার (কাবিখা) প্রকল্প

চাঁদপুর:  ২০২১-২০২২ অর্থ বছরে গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কার (কাবিখা- কাবিটা) কর্মসূচির আওতায় উপজেলা পরিষদভিত্তিক  ১ম পর্যায়ে উন্নয়ন খাতে প্রকল্প বাস্তবায়নের নিমিত্ত নদগ অর্থ বরাদ্দ প্রদান।
১ম পর্যায়ে উন্নয়ন খাতে প্রকল্প বাস্তবায়নের নিমিত্ত বরাদ্দের বিপরীতে নিম্নবর্ণিত উপজেলারসমূহ হতে প্রাপ্ত প্রকল্পসমূহ গত ২৪ অক্টোবর ২০২১ সালে জেলা কর্ণধার কমিটির সভায় অনুমোদিত হয়।
অনুমোদিত প্রকপ্লসমূহ বাস্তবায়নের নিমিত্ত নিম্নের বর্ণনা মোতাবেক প্রকল্পভিত্তিক নদগ অর্থ / খাদ্যশস্য এতদ্বারা নির্দেশক্রমে আপনার বরাবরে ছাড় করা হলো। ছাড়কৃত নদগ অর্থ দিয়ে নিম্নের শর্তাবলী অনুসরণ পূর্বক প্রকল্পসমূহ বাস্তবায়ন করতে হবে।
আগ্রামী ৩০ ডিসেম্বর ২০২১ সালের মধ্যে ১ম পর্যায়ের বরাদ্দের বিপরীতে প্রকল্প গ্রহণ, অর্থ  ছাড় করন ও কাজ সমাপ্ত করতে হবে। প্রকল্পসমূহ বাস্তবায়নের পূর্বে প্রকল্প ‘ছক’ এ কার্যালয়ে আবশ্যিকভাবে দাখিল করতে হবে।
চাঁদপুর জেলার ৬ উপজেলায় বরাদ্দের পরিমান ও গৃহিত প্রকল্পের সংখ্যার বিবরণ নদগ অর্থ, চাল ও গম।
চাঁদপুর সদর উপজেলা নগদ অর্থ ৪৭, ৩৪,৫৬৫.৪৫ টাকা, বরাদ্দের পরিমান চাল ১০০.১৮২ (মে.টন), গম ১০০.১৮২ (মে.টন), নগদ অর্থ ১৫ টি, চাল ১৬টি ও গম ১৬টি।
ফরিদগঞ্জ উপজেলায় নগদ অর্থ ৪৭,৮৯,৮৬০.১৮ টাকা, বরাদ্দের পরিমান চাল ১০১.৩৫২ (মে.টন), গম ১০১.৩৫২ (মে.টন), নগদ অর্থ ২২ টি, চাল ২০ টি ও গম ১৯ টি।
হাজীগঞ্জ উপজেলায় নগদ অর্থ ৪২,৫৭,৪৬২.২৮ টাকা, বরাদ্দের পরিমান চাল ৯০.০৮৬৬ (মে.টন), গম ৯০.০৮৬৬ (মে.টন), নগদ অর্থ ১৮টি, চাল ১৭টি ও গম ১৫ টি।কচুয়া উপজেলায় নগদ অর্থ ৪৯,৪২,৪২৫.৩৮ টাকা, বরাদ্দের পরিমান চাল ১০৪.৫৮০২ (মে.টন), গম ১০৪.৫৮০২ (মে.টন), নগদ অর্থ ১৯ টি, চাল ১৪ টি ও গম ১৪ টি।
মতলব দক্ষিণ উপজেলায় নদগ অর্থ ৩১,০৭,৮৭৬.৮২ টাকা, বরাদ্দের পরিমান চাল ৬৫.৭৬১৭ (মে.টন), গম ৬৫.৭৬১৭ (মে.টন), নগদ অর্থ ১২ টি, চাল ৯টি ও গম ৯ টি।
শাহরাস্তি উপজেলায় নগদ অর্থ ৩৫,০৭,৭৫০.৫৬ টাকা, বরাদ্দের পরিমান চাল ৭৪.২২২৯ (মে.টন), গম ৭৪.২২২৯ (মে.টন), নগদ অর্থ ১৭ টি, চাল ১২ টি ও গম ১৩ টি।
এ কর্মসূচির নগদ অর্থ ব্যয়ে প্রচলিত সকল আর্থিক বিধান এবং গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কার (কাবিখা-খাদ্যশস্য/ নগদ টাকা) কর্মসূচি বাস্তবায়ন নির্দেশিকা ২০২১ অনুসরণ ও  প্রকল্প গ্রহণ/বাছাই গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কার এর অনুচ্ছেদ ৩, ৪ ও ৫ যথাযথভাবে অনুসরণ করতে হবে।
প্রি-ওয়ার্ক পরিমান বাধ্যতামূলক করা। প্রতিটি প্রকল্পের বর্ণনাসহ যথাযথ সাইজের সাইনবোর্ড দৃশ্যমান স্থানে স্থাপন করতে হবে। নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যে কাজ সম্পুর্ণ না হলে দায়ী ব্যক্তিগণকে চিহ্নিত করে প্রচলিত বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।
প্রকল্প সুষ্ঠু বাস্তবায়নে সরকারি কর্মকর্তাদের পাশাপাশি জনপ্রতিনিধিদের তদারকি / জবাবদিহিতার আওতায় এনে সর্বসাধারনের নিকট তা দৃশ্যমান করতে হবে। বরাদ্দ প্রাপ্তির ১৫ দিনের মধ্যে প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি গঠনসহ আনুষাঙ্গিক কাজ সম্পন্ন করে শুরু নিশ্চিত করতে হবে। অব্যয়িত খাদ্যশস্য/ নগদ অর্থ  যথাসময়ে ফেরত প্রদান নিশ্চিত করতে হবে।
নতুনভাবে তৈরিকৃত / সংস্কারকৃত গ্রামীণ রাস্তার দুই পার্শ্বে স্থানীয় কৃষি বিভাগের পরামর্শক্রমে তাল গাছের চারা রোপণের কার্যক্রম করতে হবে।
গৃহিত/প্রস্তাবিত প্রকল্প সরেজমিনে পরিদর্শন করে বরাদ্দকৃত নগদ অর্থ / খাদ্যশস্য ছাড় করতে হবে। প্রকল্প বাস্তবায়নের মাসিক অগ্রগতির প্রতিবেদন নির্ধারিত ছকে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কার্যালয়ে প্রেরণ এবং নিরীক্ষার জন্য যাবতীয় হিসাব ও মাষ্টাররোল তাঁর দপ্তরে সংক্ষণ করতে হবে।
ফম/এমএমএ/

শাহ্‌ আলম খান | ফোকাস মোহনা.কম