চাঁদপুরের কুখ্যাত মাদক ব্যাবসায়ী আবু ছৈয়ালসহ ২জন ইয়াবাসহ গ্রেফতার

চাঁদপুর : চাঁদপুর শহরে দীর্ঘ প্রায় ২৫ বছর যাবত মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত বহু মামলার অন্যতম আসামী দাগী ও কুখ্যাত মাদক ব্যাবসায়ী মোঃ আবুল কালাম প্রকাশ আবু ছৈয়াল (৪৫) ও তার সহযোগি মোঃ আল-আমিন খাঁন (৩০)সহ ২জন কুখ্যাত মাদক ব্যবসাযীকে ৯০পিচ ইয়াবাসহ শহরের নতুন বাজার পুলিশ ফাঁড়ীর উপ-পরিদর্শক মো: ইসমাইল হোসেনসহ সঙ্গীয় ফোর্স গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছেন ।

বুধবার  (১০ নভেম্বর) বিকেলে নতুন বাজার পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে শহরের সদর মডেল থানাধীন পৌরসভাস্থ নিশি বিল্ডিং খ্রিস্টান কবরস্থানের উত্তর পাশের জনৈক মোঃ সৈকত খাঁনের বাড়ীর পূর্ব পাশে বালুর মাঠ নিশি বিল্ডিং এলাকা হতে মাদক ব্যবসায়ীদ্বয়কে গ্রেফতার করে।

অভিযোগ উঠেছে,আবু ছৈয়াল চাঁদপুর জেলা ভাঙ্গারি ও পুরাতন লোহা সমিতির সভাপতি ছাব্বির ছৈয়ালের ছত্র ছায়ায় থেকে তার ভাতিজা এ মাদক ব্যবসা করে যাচ্ছে। যা’শহর তথা জামতলা ও বকুলতলা বাসীর কাছে প্রকাশ্য জানা রয়েছে।

আবু ছৈয়াল চাঁদপুর শহর ছাড়া ও উত্তর শ্রীরামদা জামতলা,বকুলতলা মার্কেট এলাকায় তার ব্যবসা জমজমাট ভাবে চালায়। আবু ছৈয়ালের পিতা মৃত রাজ্জাক ছৈয়াল দীর্ঘ বহু বছর পূর্বে মারা যাওয়ার পর আবু ছৈয়াল এলাকায় এ ব্যবসার চালিয়ে যায়। সে বহু মামলার অন্যতম আসামী হয়েও তার চাচা ছাব্বির ছৈয়ালের সহায়তায় আদালত থেকে জামিনে এসে পুনরায় এ ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছিল।

খোঁজ নিয়ে ও এলাকাবাসীর সাথে আলাপকালে জানা যায়,এ কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী আবু ছৈয়ালের বিরুদ্বে উত্তর শ্রীরামদা জামতলা,বকুলতলা মার্কেট এলাকায় কেহ তার বিরুদ্বে কথা বলার সাহস পায়না। তার রয়েছে পালিত দলবল। যার ফলে সে এ এলাকাকে করে ফেলেছে মাদকের স্বর্গরাজ্য। এ মাদকের ছোবলে এলাকার স্কুল,কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থী ও যুব সমাজ দিনদিন ধবংশের দিকে ধাবিত হচ্ছে।

নাম প্রকাশ না করা স্বত্তে এলাকার অসংখ্যজন জানান,এ কাজের সাথে আরো জড়িত রয়েছেন মৃত আব্দুর রশিদ পাটওয়ারীর ছেলে ও নাতিরা। তারা বকুলতলা এলাকায় বসবাসরত রশিদ পাটওয়ারীর ছেলের সহায়তায় দীর্ঘদিন যাবত মাদক ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। রশিদ পাটওয়ারীর ছেলে ও নাতিরা মাদকসহ কয়েকবার পুলিশের হাতে আটক হয়ে আদালত থেকে তাদের চাচার মাধ্যমে জামিনে এসে পুনরায় এ মাদক ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে।

এলাকাবাসী অভিযোগের ভাষায় জানান,এ সব মাদক ব্যবসায়ীদের প্রকাশ্যে আশ্রয়, প্রশ্রয় ও সাহস দিয়ে যাচ্ছেন,স্থানীয় ২জন জনপ্রতিনিধি। জনপ্রনিধিদের প্রশ্রয় ও তাদের সহযোগিতা পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা এ মাদক ব্যবসা করার সাহস পেয়ে মাদক ব্যবসা দিনদিন প্রসারিত করে যাচ্ছে। গ্রেফতারকৃত মাদক ব্যবসায়ী আবু ছৈয়াল হচ্ছে,সদর উপজেলার উত্তর শ্রীরামদা জামতলা ছৈয়াল বাড়ির মৃত রাজ্জাক ছৈয়ালের বড় ছেলে ও মোঃ আল-আমিন খাঁন,উত্তর শ্রীরামদী (নিশি রোড, হাওলাদার বাড়ী) ইসমাইল খাঁন ও ফরিদা বেগমের ছেলে।

এলাকাবাসী আরো জানান, এ আবু ছৈয়াল তার পিতা রাজ্জাক ছৈয়ালের প্রথম স্ত্রীর ছেলে। সে স্ত্রী ঢাকায় থাকে। মাদক ব্যবসায়ী আবু ছৈয়ালকে তার মা’ঢাকায় নিয়ে অন্য কাজে লাগালেও তার চাচা ছাব্বির তাকে ঢাকা থেকে নিয়ে আসে এবং এ মাদক কাজে সহায়তা করে থাকে বলে জনশ্রুতি রয়েছে।

এ ছাড়া আবু ছৈয়ালকে ইদানিংকালে চাঁদপুর নৌ-টার্মিনালে ঢাকা-চাঁদপুরের মধ্যে চলাচলকারী ময়ুর-৭ লঞ্চে যাত্রীবাহি লঞ্চে যাত্রী নামার সময় টিকেট গ্রহন করতে দেখা গেছে। সে লঞ্চে কাজ করে এখন আর মাদক ব্যবসা করা না বলে প্রচার করে যাচ্ছিল। খোজ-খবর নিয়ে জানা যায়,লঞ্চে কাজের আড়ালে সে সত্যিকার অর্থে মাদক ব্যবসা করে যাচ্ছিল। আসামীদ্বয়ের বিরুদ্ধে চাঁদপুর মডেল তানায় মাদক মামলা রুজু করা হয়েছে।

এ বিষয়ে ভাঙারি মমিতির সভাপতি ছাব্বির ছৈয়াল মুঠো ফোনে জানান, আবু ছৈয়াল মাদক ব্যবসা করে বহু বছর ধরে। সে ঢাকায় তার মায়ের কাছে চলে গিয়ে ছিল। সেখানে তার ভাল লাগেনা। যার জন্য চাঁদপুর চলে আসে। তার স্ত্রীর অনুরোধে তাকে আদালত থেকে জামিন করাই। ভাল করার চেস্টা করেও তাকে ভাল করা যাচ্ছেনা। তার এ কাজে আমার কোন সহায়তা ছিলনা এখনও নেই।
এ বিষয়ে নতুন বাজার পুলিশ ফাঁড়ীর উপ-পরিদর্শক মো: ইসমাইল হোসেন জানান,দীর্ঘ বহুদিন চেস্টা চালিয়ে এ মাদক ব্যবসায়ী আবু ছৈয়ালকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সে অনেক চতুর। সে তার সহযোগিদের দিয়ে মাদক ব্যবসা করে যাচ্ছিল বলে আমাদের কাছে অভিযোগ আসে।

ফম/এমএমএ/

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | ফোকাস মোহনা.কম