চতুর্থবারের মতো বিসিবি সভাপতি পাপন

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডে ২০১৩ ও ২০১৭ সালের পর টানা চতুর্থবারের মত সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন নাজমুল হাসান পাপন।

বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) নির্বাচিত বোর্ড পরিচালকদের প্রথম সভায় তিনি এককভাবে টাইগার ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাচিত হন।

পরিচালক পদে ক্যাটাগরি-২ ঢাকার ক্লাব কোঠায় যৌথভাবে সর্বাধিক ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন নাজমুল হাসান পাপন। তিনি পেয়েছেন ৫৩ ভোট। আর নির্বাচিত ২৫ জন পরিচালকের ভোটে তাকে নির্বাচন করা হয় প্রেসিডেন্ট হিসেবে।

সরকারের মনোনীত হয়ে ২০১২ সালে বিসিবির সভাপতির আসনে বসেছিলেন পাপন। পরের বছর প্যানেল নির্বাচন করে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সভাপতি নির্বাচিত হন তিনি। চার বছর পর ২০১৭ সালেও একইভাবে নির্বাচিত হয়েছিলেন। কিন্তু দুবারই বিসিবির পরিচালক নির্বাচিত হয়েছেন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায়। তবে এবার সেই স্বাদটা নিলেন বোর্ড প্রধান পাপন।

টানা তৃতীয়বারের মত বিসিবি পরিচালক নির্বাচিত হয়েছেন নাজমুল হাসান পাপন। ছবি: সংগৃহিত।

কাল বিসিবিতে প্রথম নির্বাচন শেষে পাপন বলেছিলেন নির্বাচনে আসার রোমাঞ্চের কথা। তিনি বলেছিলেন, ‘নির্বাচন কাকে বলে, আসলে আমি ক্রিকেট বোর্ডে এর আগে দেখিনি। গত দুবার নির্বাচন হয়নি, আজকে (কাল) দেখলাম মোটামুটি নির্বাচন প্রক্রিয়া সুষ্ঠু ছিল। এতে কোনো সন্দেহ নেই, শান্তিপূর্ণ ছিল। মানুষ ভোট দিয়েছে, এটাই বড় কথা।’

বিসিবির এবারের নির্বাচনে নতুন মুখ ছয়জন। নির্বাচিত পরিচালকেরা বোর্ড প্রধান হিসেবে আবারও নাজমুল হাসানকে চান বলে তিনিই আবার দায়িত্ব নিচ্ছেন। আজ সভা শেষে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন নতুন পরিচালনা পর্ষদের সদস্যরা।

পরিচালকদের ১৯ জনই তার সঙ্গে বিসিবির শেষ দুই মেয়াদে পরিচালক হিসেবে ছিলেন। নতুন মুখ ছয়জন ইফতেখার রহমান, সালাহ্উদ্দিন চৌধুরী, ওবেদ রশীদ নিযাম, ফাহিম সিনহা, মনজুর আলম ও তানভীর আহমেদ। এই ২৫ পরিচালকের ভোটেই নির্বাচিত হয়েছেন নতুন বোর্ড সভাপতি।

বিসিবির পরিচালনা পরিষদে দুজন আসছেন জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের মনোনয়নে। বাকি ২৩ পদের বিপরীতে মনোনয়ন তুলেছিলেন ৩২ জন। কিন্তু ক্যাটাগরি-১ (বিভাগ ও জেলা) থেকে সাত কাউন্সিলর বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। শেষ সময়ে ১৬ পদের জন্য তিনটি ক্যাটাগরি থেকে লড়ে ২৩ জন। ১৭১ কাউন্সিলর থাকলেও নির্বাচনে ভোট দিয়েছেন ১০৯ জন।

ফম/এমএমএ/

স্পোর্টস ডেস্ক | ফোকাস মোহনা.কম