কয়েক মূহুর্তের জন্য

সজীব খান ।। কেনবা এলে, আবার চলে গেলে, অপ্রত্যাশিত ভাবে তোমার একটু সঙ্গ পেয়ে মনে হলো যেন স্বর্গের সুখে বাস করলাম, প্রতিমূহুর্তের আঁখি দুটি সামনে  ভেসে উঠো তুমি প্রতিচ্ছবি হয়ে। তুমি চলে যাওয়ার পরে থেকেই অনুভবে মনে পড়ছে বার বার তোমায়। কি উপমায় সাঁজাবো তোমায়, তুমি যেন আমার অন্ধকার জীবনে আঁধারের বুকে একচিলতে রোদ হয়ে স্বল্পের জন্য এলে। মনের সুখে মরা পদ্মায় উঠালে জোয়ার। কেন এলে, এভাবে তুমি, তোমার দেখা না হলে পৃথিবীর বুকে অধঁরাই থেকে যেত বিদাতার অপরুপ সুন্দর্যের নিলাভূমি।
তুমি সুন্দর, তোমার রুপের হয়না কোন তুলনা, বিধাতা তােমায় গড়েছে পৃথিবীর সমস্ত রুপ দিয়ে, তুমি মায়াবীনী, তুমি জোৎনা রাতে আকাশের বুকে মিটি মিটি তারা।
তোমায় আরো একান্ত করে কাছে পেতে মনের ব্যাকুলতা কমতি নেই, আক্ষেপ বেড়ে চলছে মনের মাঝে, অবুঝ মন, মানছেনা যে রয়েছে সামনে দেয়াল। তুমি ফের আসবে, বসবে আমার পাশে, এমন ভাবনা আমাকে সর্বক্ষণ ভাবায়। তুমি বর্ষায় ফুটা কদম ফুল, কৃষ্ণ চিড়ার অপরুপ সুন্দর্য।
কি যাদু আছে তোমার মাঝে, তুমি এলে, হৃদয় জয় করলে আবার চলে গেলে, চলে যেতে হবে , এটাই বাস্তাব, এটাই বিধির নিয়ম, যেভাবে তুমি এলে, সেভাবে বেশিক্ষণ থাকা যায়না। থাকতে হলে কিছু একটা সম্পর্কের টানা থাকতে হয়। থাকতে হয় একটা নিরিবিলি পরিবেশ। পিছু টান থাকলে মনের সুখ আসেনা পরিপূর্ণ তৃপ্তিতে। একটা নিরজন পরিবেশ তৈরি করে সময় কাটাতে পারলে দুজনের মনের না বলা কথাগুলো বলে হালকা করা যায় হৃদয়ের জমানো কথা। আবার আসবে কবে সে দিন? অপেক্ষা করতে হবে প্রবাহমান স্রোতে, যেখানে সময় যেতে থাকবে, কাংক্ষিত সময় আসবেনা।
কৃতজ্ঞতা তার প্রতি যার কারনে তুমি এলে, তোমাকে নিজের করে কিছুক্ষণ পাশে পেয়েছি। চার দেয়ালের মাঝে অনেক সময় কাটানো যায়, কিন্তু যেখানে তোমার আলিঙ্গন পেয়েছি, সেখানে স্বল্প সময় থাকা যায়, শত শত সহপাঠী, এর মাঝে কি করে তোমাকে বুকে আগলে রেখে শুনাবো ভালবাসার গান।
আরো আগে কেন তুমি এলেনা, যখন এলে, তখন একটা হিমালয় দাঁড়িয়ে আছে দুজনার সামনে। শত চেষ্টা করলে ও হিমালয় ডেঙ্গিয়ে পার হওয়া যাবেনা। সমাজ আছে, বাস্তবতা আছে। একটা কারনে তোমাকে নিজের করে পাওয়া পথে বাঁধা হয়ে আছে।
তুমি আমার অনুভবে থাকবে আজীবন, থাকবে, মনে মণিকোঠায় হৃদয় পিঞ্জরে, বুকে বামপাশে।
সখি ভালবাসা দিবো তোমায় উড় চিঠির মাঝে, যখন দেখবে আকাশে মেঘ জমেছে, কনকনে বাতাস বইছে, কাঁশফুলগুলো সাদা ফুল দিয়ে সবুজকে রাঙ্গিয়েছে, তখন বুঝবে আমি ভালবাসা পাঠিয়ে তোমার জন্য। সাদা মেঘে রোদ, বৃষ্টিতে সব সময় আমাকে দেখবে, অনুভবে মনের গহিরে রাখবে, সখি ভালবাসি আমি তোমায়।
বার বার তোমার সঙ্গ পেতে চায় মন, কিন্তু পারিনা, একটা দেয়াল সামনে আটকে রাখে, যেতে দেয়না তোমার কাছে। তুমি মাধুবীলতা, নাকি মরুভূমির মাঝে জেগে উঠা কাঁশফুল। আমি কোনটা ভাববো তোমায়, তুমি বাতাসের সাথে খেলা করে আমাকে নিভৃতে চুয়ে যেও। কয়েক মহুত্বে তুমি পৃথিবীর রাজসিংঙ্গাসনে বসে আমাকে ভালবাসার চাঁদরে আগলে রেখে পাল তুলেছো সমুদ্রের বুকে, পাড়ি দিয়েছে অজানার পথে। মাঝি নেই তোমার পালে, কূল খুঁজে পেয়ে ভুলে যেওনা আবার, যখনি ডাকবে পাশে পাবে একটা বটবৃক্ষের মত, ছুটে যাবো শত বাঁধা অতিক্রম করে, তুমি ক্ষণিকের ভালবাসায় মনে রাখবে আমার দূর বিশ্বার, বিশ্বাসে বস্তু মিলে, আমি সে বিশ্বাস নিয়ে অপেক্ষায় থাকবো, দিন থেকে মাস, মাস থেকে বছর, বছর থেকে যুগ, যুগ থেকে যুগান্তর, তুমি সুন্দর চাঁদের ছেও।

ফোকাস মোহনা.কম