কচুয়ায় গৃহবধু রিয়ার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

তানজিনা আক্তার রিয়ার (২১)। ছবি: সংগ্রহীত।

কচুয়া (চাঁদপুর): চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার কড়ইয়া ইউনিয়নের নোয়াগাঁও গ্রামের পাটোয়ারী বাড়ির আলমগীর হোসেনের চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী তানজিনা আক্তার রিয়ার (২১) ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেন কচুয়া থানা পুলিশ।

মঙ্গলবার (১০ জানুয়ারি) দুপুরে কচুয়া থানার পুলিশ খবর পেয়ে রিয়ার স্বামী গৃহের সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলানো অবস্থায় এ মরদেহ উদ্ধার করে।

রিয়ার পিতার বাড়ী উপজেলার বড়তুলাগাঁও গ্রামে। প্রায় ৩ বছর পূর্বে রিয়ার সাথে প্রবাসে থাকা আলমগীরের মোবাইল ফোনে বিয়ে হয়। বিয়ের দেড় বছর পর আলমগীর দেশে ফিরে আসার পর তারা ধর্মীয় রীতি-নীতি অনুসারে পুনরায় বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। কয়েক মাস সুখে শান্তিতে বসবাস করার পর শুরু হয় তাদের মধ্যে মনোমালিন্য। এ মনোমালিন্য কয়েক মাস পূর্ব থেকে চরমে উঠে। রিয়া শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের শিকার হতে থাকে স্বামী গৃহে। এ নিয়ে বেশ কয়েকদফা শালিশ বৈঠক বসে। রিয়ার মৃত্যুর ঘটনায় তাঁর পিতা আকতার হোসেন মিন্টু কচুয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

তিনি অভিযোগে উল্লেখ করেন, ৯ জানুয়ারি রাত সাড়ে ৮ টার দিকে রিয়ার স্বামীর ফোন দেখার বিষয় নিয়া তাদের মধ্যে ঝগড়া বিবাদ হয়। রাত ১২ টার দিকে রিয়ার স্বামী ফোনে আমাকে জানায় যে, তাদের বাড়িতে যাওয়ার জন্য। তখন মেয়ের সাথে ফোনে কথা বলে জানতে পারি তার স্বামী তাকে ২/৩টি চর থাপ্পর মেরেছে। আমি তাকে ঝগড়া না করে শান্ত থাকার জন্য পরামর্শ দেই। পরবর্তীতে রিয়া রাগ করে গৃহের ভিতরে শয়ন কক্ষের দরজা বন্ধ করে শুয়ে পড়ে। তার স্বামী অন্য কক্ষে ঘুমায়। মঙ্গলবার সকালে রিয়ার স্বামী আলমগীর হোসেন কক্ষের দরজা ধাক্কা ধাক্কি করেও দরজা খোলেনি ও রিয়াকে ফোন দিলে সে ফোন রিসিভ করেনি এ বিষয়টি রিয়ার স্বামী আমাকে ফোনে জানালে তাৎক্ষনিক আমরা আলমগীরের বাড়ি পৌছে দরজা ভেঙ্গে দেখতে পাই সিলিং ফ্যানের সাথে ফাঁস অবস্থায় রিয়ার ঝুলন্ত লাশ।

কচুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইব্রাহীম খলিল জানান, এ ব্যাপারে কচুয়া থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে, মামলা নং (১)। ময়না তদন্তের জন্য রিয়ার লাশ চাঁদপুরের মর্গে পাঠানো হয়েছ। ময়না তদন্তের রিপোর্ট পেয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে সদালাপি ও উত্তম ব্যবহারের অধিকারিনী রিয়ার ঝুলন্ত মরদেহ পাওয়ার খবর পেয়ে এলাকার শতশত নারী পুরুষ তাকে নজর দেখতে ছুটে আসে।
ফম/এমএমএ/রাছেল/

মো. রাছেল | ফোকাস মোহনা.কম