কচুয়ার রহিমানগর-ভাতেশ্বর রাস্তা সংস্কারের নামে হচ্ছে লুটপাট

কার্পেটিং করার ২৪ঘণ্টা অতিবাহিত হতে না হতেই উঠে যাচ্ছে কার্পেটিং

কচুয়া: কচুয়া উপজেলার গুরুত্বপূর্ন সড়ক হিসেবে পরিচিত রহিমানগর-ভাতেশ্বর রাস্তার সংস্কার কাজ নিম্নমানের হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ৯৫ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ৪কিলোমিটার দৈর্ঘ্যরে এ রাস্তার সংস্কার কাজ চলতি বছরের মার্চ মাস থেকে শুরু করা হলেও দুই মাসের মধ্যে মাত্র ১২শ মিটার কাজ সম্পন্ন করা হয়। বাকী রাস্তার সাববেইজ করার পর সংস্কার কাজ বন্ধ রাখা হয় মাসের পর মাস। এসময় রাস্তায় পুনরায় গর্ত সৃষ্টি হয়ে যানবাহন চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়ে। এমনকি সংস্কার করা ১২শ মিটার অংশেও নিম্নমানের কাজ হওয়ায় পুনঃগর্ত সৃষ্টি হয়। কর্তৃপক্ষের নিকট এলাবাসীর বহু আবেদন-নিবেদনের পর গত সপ্তাহ থেকে পুনরায় বাকী রাস্তার সংস্কার কাজ শুরু করা হয়।
মঙ্গলবার (২৬ নভেম্বর) সরে জমিনে গিয়ে দেখা যায়, এ পর্যন্ত আরো প্রায় ১কিলোমিটার রাস্তার পুনঃসংস্কারের কাজ হয়। কিন্তু স্থানীয় অধিবাসীদের অভিযোগ, কার্পেটিং এর কাজ অতি নি¤œমানের করা হচ্ছে। কার্পেটিং হচ্ছে অনুর্ধ্ব আধা ইঞ্চি পুরুত্তের। এতে করে কার্পেটিং করার ২৪ ঘণ্টা অতিবাহিত হতে না হতেই উঠে যাচ্ছে কার্পেটিং ।
এ ব্যাপারে স্থানীয়রা আরো অভিযোগ করে বলেন, উপজেলা প্রকৌশল বিভাগকে নিম্নমানের কাজ করার বিষয়টি অবগত করানো সত্বেও তারা কার্যকরি কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না। সংস্কারের দুই মাস অতিবাহিত না হতেই রাস্তায় গর্ত সৃষ্টি হওয়ায় একটি নজির বিহীন ঘটনা। রাস্তা সংস্কারের নামে মূলত হচ্ছে লুটপাট। এদিকে সাংবাদিকরা প্রকৌশলীকে কর্মস্থলে না পেয়ে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাকে না পাওয়ায় তার বক্তব্য জানা যায়নি।
এলাকাবাসী জানায়, রাস্তাটির ইতিপূর্বে আরেকবার সংস্কার করা হয়। ওই সংস্কার কাজও অতি নিম্নমানের করায় দুই/আড়াই বছর অতিবাহিত হতে না হতেই রাস্তাটিতে বড় বড় গর্ত সৃষ্টি হয়ে যান চলাচলে অনুপোযোগী হয়ে পড়ে। ভাংচুর রাস্তা পাড়াপারে এলাকাবাসীর দুঃখ-কষ্টের অবসান হচ্চেনা বিধায় এলাকাবাসী হতাশ। অবস্থার দৃষ্টে মনে হচ্ছে রাস্তা সংস্কার কাজের দেখভাল করার যেন কেউ নেই।
ফম/এমএমএ/

উপজেলা করেসপন্ডেন্ট | ফোকাস মোহনা.কম